Date : 2022-12-06

পরিবেশকে সুন্দর করতে এবং দূষণ রোধ করতে বেশ কিছু পদক্ষেপের ঘোষণা করলেন পরিবেশ মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া।

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিক: পরিবেশকে দূষণের হাত থেকে রক্ষা করতে ২০২৩ এর পরিকল্পনা ২০২২ – এ সেরে ফেললেন পরিবেশ মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া। বৃহস্পতিবার পরিবেশ ভবনে একটা সাংবাদিক সম্মেলনে জানান পরিবেশ মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া। উপস্থিত ছিলেন wbpcb চেয়ারম্যান ড: কল্যাণ রুদ্র সহ বিশিষ্টজনেরা। আগামী সপ্তাহ থেকে আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালে কিভাবে পলিউশন কন্ট্রোল করা যায় এবং সচেতনতা কিভাবে বাড়ানো যায় তা নিয়ে পরিকল্পনা শুরু হবে বলে জানান তিনি। পাশাপাশি ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মাসে ভি.ডি.ও থেকে ডি.এম, ওসি থেকে এসপি, এছাড়া জেলা স্তর, পঞ্চায়েত স্তরে সব আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনায় বসা হবে। তিনি জানান পুলিশ প্রশাসন তৎপরতার পাশাপাশি মানুষের সচেতনতা একমাত্র হাতিয়ার দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্যে। মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া জানান


পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ কমিশন খুব ভালো কাজ করেছে। তিনি তাঁর দফতর নিয়ে ভুয়সী প্রশংসাও করেন। তিনি বলেন তাঁর দফতর হলো বেস্ট দফতর। এবং “best pollution control board in India”। “আমার দফতর নিয়ে আমি গর্বিত” – বলে জানান। দুর্গা পুজো, কালি পুজো, দিওয়ালী, ছট পুজো তে চেষ্টা করা হয়েছে যাতে ডি. জে, বাজি নিয়ন্ত্রণ করতে। দুর্গা পুজো তে ডি.জে বন্ধ করতে পেরেছি ৯৮ শতাংশ। ছট পুজোয় ডি. জে বেজেছে বেশি সেটা কন্ট্রোল করার হবে পরের বছর। বাজি ফেটেছে তবে তুলনামলকভাবে কম।


শব্দ বাজি কে আটকাতে গ্রিন বাজি প্রোডাকশন এর ওপর জোর দেওয়া হবে। কারণ গ্রিন বাজির প্রোডাকশনহয় কম হয়। যারা ইচ্ছুক গ্রিন বাজি প্রোডাকশন করতে , তাদের যোগাযোগ করতে বলেছেন পরিবেশ মন্ত্রী।
এবার তথ্য অনুযায়ী বাংলায় বাজি উদ্ধার হয়েছে ১৪ হাজার দশমিক ১২ কেজি বাজি উদ্ধার হয়েছে। আটক হয়েছে ২৭০ জন। এফ আই আর হয়েছে ২৭৪ জন কে। কলকাতা তে বাজি উদ্ধার হয়েছে তথ্য অনুযায়ী:
৯৬৯৫.০৯ কেজি। আটক
৯২ জন। এফ আই আর ৬৬ জন।
ইল-লিগাল বাজি ঢুকছে ঝাড়খণ্ড, বিহার থেকে । সেই জায়গা গুলো বন্ধ করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
শীতকালে আবহাওয়া পরিবর্তন হয়। বৃষ্টি কম হয়। তাই ধুলিকণা কে নিয়ন্ত্রন করতে আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে প্রতিদিন রাস্তা ধোয়া হবে। মূলত ৬ টা জেলা। যেমন হাওড়া, ব্যারাকপুর, আসানসোল, কলকাতা, হলদিয়া, দূর্গাপুর। এছাড়া শিলিগুড়িও। পয়লা জুলাই থেকে প্লাস্টিক নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। কিন্তু এখনও প্লাস্টিক ব্যবহার রমরমিয়ে চলছে। এটা বন্ধ করতে কড়া পদক্ষেপ নেবে দূষণ পর্ষদ।