Date : 2022-12-06

“দলছুট তিন হস্তিশাবক যেন নিজের ছেলেমেয়ে।” নামকরণ করে বললেন বিরবাহা হাঁসদা।

সঞ্জু সুর,সাংবাদিক:- গরুমারা জাতীয় উদ্যানে পালিত হ‌ওয়া তিনটি হস্তিশাবকের নামকরণ করলেন রাজ্যের বন দফতরের প্রতিমন্ত্রী বিরবাহা হাঁসদা। ‘বির’, ‘কৃষ্ণকলি’ ও ‘ভীম’, তিন হস্তিশাবকের নামকরণ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেগঘন পোষ্ট করেন তিনি।

কয়েকদিন আগে সপরিবারে উত্তরবঙ্গ গিয়েছিলেন রাজ্যের বন দফতরের প্রতিমন্ত্রী বিরবাহা হাঁসদা। সেখানে গরুমারা জাতীয় উদ্যানের একটি বিট অফিসে তিনি এই তিনটি হস্তিশাবককে দেখতে পান। বনকর্মিরা তাঁকে জানান এই হস্তিশাবকগুলি বিভিন্ন সময়ে দলছুট হয়ে পড়েছিলো। তাদের কে আর দলে ফিরিয়ে দেওয়া যায় নি। সেই থেকে এই জাতীয় উদ্যানেই রয়েছে হস্তিশাবকগুলি। বনকর্মিদের অনুরোধে শাবকগুলির নামকরণ করেন মাননীয় মন্ত্রী। আবেগঘন পোষ্ট ও হস্তিশাবকের নামকরণ নিয়ে প্রশ্ন করলে মন্ত্রী জানান, “আমি নিজে জঙ্গলমহলের মেয়ে।

তাই মুখ্যমন্ত্রী যখন আমাকে এই দফতরের কাজ দেখার দায়িত্ব দেন তখনই খুব খুশি হয়েছিলাম। জঙ্গল না থাকলে তো বিরবাহা থাকবে না।” তিনি আরোও বলেন, “হস্তিশাবকগুলোকে দেখে এত ভালো লাগছিলো, ওদের প্রতি এত মায়া পড়ে গেল যে নিজের ছেলেমেয়ের মতো মনে হয়েছে।” নামকরণ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে নিজের নামের মানেটাও জানালেন তিনি। ‘বির’ শব্দের অর্থ ‘জঙ্গল’ আর ‘বাহা’ শব্দের অর্থ ‘ফুল’। তিনি বিরবাহা হাঁসদা। তিনি ‘জঙ্গলের ফুল’। মন্ত্রী আরও জানান দলছুট এই হস্তিশাবকগুলি যেহেতু আর দলে ফিরতে পারবে না, তাই তাদেরকে কুনকি হাতি তৈরির প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।