Date : 2022-12-03

কুনাল অস্ত্রে শান। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে শুভেন্দু গড়ে বিশেষ দায়িত্বে তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক:- পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে হলদিয়ায় ঘাঁটি গাড়ছেন কুনাল ঘোষ। দলের নির্দেশে মঙ্গলবার থেকেই হলদিয়ায় পাকাপাকিভাবে থাকতে চলেছেন তিনি। বিধানসভা নির্বাচনের ফল ভুলে পঞ্চায়েত নির্বাচনকেই এখন পাখির চোখ করে এগোতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিশেষ করে শুভেন্দু গড়ে ঘাসফুলের যাতে কোনো স্খলন না ঘটে সেদিকে নজর দেওয়ার জন্য‌ই কুনাল ঘোষকে এই বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম মুখপাত্র কুনাল ঘোষ তাঁর যে কোনো সাংবাদিক সম্মেলনে একপ্রকার নিয়ম করেই আক্রমণ করেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে। শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর কুনাল ঘোষ‌ই তৃণমূল কংগ্রেসের সম্ভবতঃ একমাত্র নেতা যিনি প্রায় প্রতিদিন শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সরব হয়েছেন। এ হেন কুনাল ঘোষকেই এবার দলের পক্ষ থেকে পূর্ব মেদিনীপুর এর একটা বড় অংশ দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দায়িত্ব পেয়ে মঙ্গলবার‌ই হলদিয়ায় কুনাল ঘোষ। এ প্রসঙ্গে আর প্লাস নিউজকে কুনাল ঘোষ বলেন, “কোনো বিশেষ দায়িত্ব নয়। দলে এখন কোনো পর্যবেক্ষক পদ নেই। তবে দল নির্দেশ দিয়েছে হলদিয়া, নন্দীগ্রাম অঞ্চলের নেতা কর্মিদের সাথে নিয়ে কাজ করতে। তাই যাচ্ছি।” তিনি আরও বলেন, “এই অঞ্চলে দলের নিজের সংগঠন যথেষ্ট মজবুত। তোবু সবাইকে সঙ্গে নিয়ে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশানুযায়ী কাজ করবো।” রোজ কলকাতা থেকে হলদিয়া বা নন্দীগ্রাম দৌড়ঝাঁপ না করে একেবারে ওখানেই ঘাঁটি গেড়ে বসতে চাইছেন কুনাল ঘোষ। সেই কারণে হলদিয়াতে নিজের থাকার ব্যবস্থাও করে ফেলেছেন তিনি। মঙ্গলবার পুজো দিয়ে ‘গৃহপ্রবেশ’ করছেন। যদিও ‘গৃহপ্রবেশ’ শব্দটায় তাঁর আপত্তির কথা জানিয়ে কুনাল ঘোষ বললেন, “আগামি দিনগুলোতে যেখানে থাকবো, সেখানে একটু পুজো করে নেওয়া। এই যা।” দলে পর্যবেক্ষক পদ থাকুক আর না থাকুক, গৃহপ্রবেশ হোক বা না হোক, হলদিয়ায় কুনাল ঘোষের ঘাঁটি গেড়ে বসা মানে যে আগামি পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে শুভেন্দু অধিকারীর গড়ে দলের পক্ষ থেকে বিশেষ দায়িত্ব পাওয়া, সেটা নিশ্চিত করেই বলা যায়। নন্দীগ্রাম বিধানসভা নির্বাচনে শুভেন্দু অধিকারীর কাছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরাজয় (যদিও এখনও এটি বিচারাধীন বিষয়) এর ক্ষত এত সহজে যাওয়ার নয়, তার উপর দলের আভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের কারণে পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভালো মন্দ কিছু হলে সেটা দলের কাছে আরো বেশি বিড়ম্বনার হবে তা বলাই যায়। তাই কুনাল ঘোষের সামনে যে দল একটা কঠিন টাস্ক দিয়েছে সেটাও নিশ্চিত করেই বলা যায়।