Date : 2024-07-22

সিআইডি তদন্তে তীব্র সমালোচনা বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসুর। সঠিক পথে এগোচ্ছে না তদন্তবলেও মন্তব্য বিচারপতির।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক :

মুর্শিদাবাদের গোথা এআর হাই স্কুলের শিক্ষক নিয়োগের তদন্তে সিআইডির ভূমিকায় অসন্তুষ্ট কলকাতা হাই কোর্ট। এই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশিস তিওয়ারির বিরুদ্ধে মেমো নম্বর জাল করে ছেলে অনিমেষকে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। আগেই এই ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু। সোমবার তাঁর মন্তব্য, “সিআইডির ভূমিকায় আমি একেবারে সন্তুষ্ট নই। তদন্ত সঠিক পথে এগোচ্ছে না। এ ভাবে তদন্ত চললে সিআইডির ডিআইজিকে ডেকে পাঠাব। প্রয়োজনে আদালতের পর্যবেক্ষণ সার্ভিস বুকে উল্লেখ করতে নির্দেশ দেব। সেটা কিন্তু ভাল হবে না।”

“মামলাকারীরা সিবিআই তদন্তের দাবি করেছিলেন। আমি সিআইডির উপর ভরসা করেছিলাম। তার এই পরিণাম। এমন কড়া মন্তব্য করতে বাধ্য করবেন না যাতে সিআইডির উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।” আদালতের প্রশ্ন, কেন অভিযুক্ত এবং বহিষ্কৃত শিক্ষক অনিমেষ তিওয়ারিকে এখনও গ্রেফতার করা গেল না? কী ভাবে এত দিন তিনি বেতন পেতেন? কার বদান্যতায় সেটা হল? কেন এখনও তার সন্ধান পেল না সিআইডি? ।

আগামী ৬ এপ্রিল এই বিষয়ে আবারও রিপোর্ট তলব করেছে হাই কোর্ট। সোমবার শুনানিতে সিআইডি জানায়, অনিমেষ এ রাজ্যে নেই। তাঁর মোবাইল ফোনের লোকেশন কখনও উত্তরপ্রদেশ, কখনও বা বিহার দেখাচ্ছে।