Date : 2024-07-15

‘যাত্রী সাথী’ অ্যাপে ভোগান্তি। সমস্যায় যাত্রী ও চালকরা

শাহিনা ইয়াসমিন, সাংবাদিক :- হাওড়া স্টেশন চত্বরে বহু মানুষের আনাগোনা। তাড়াতাড়ি নিজের গন্তব্য পৌঁছনোর জন্য বেশিরভাগ মানুষ ট্যাক্সি ধরে। কেউ অ্যাপ ক্যাব, কেউ আবার প্রিপেড বুথ থেকে ট্যাক্সি বুক করেন। তবে হাওড়া স্টেশন যাত্রীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে ওয়েস্ট বেঙ্গল ইয়োলো ট্যাক্সি অ্যাসোসিয়েশনের তরফে ‘যাত্রী সাথী’ নামে একটি অ্যাপ চালু করা হয়।
১লা অগাস্ট থেকে চালু হয়েছে। এটি আগে ট্রায়াল রানে ছিল। এই অ্যাপের মাধ্যমে নির্দিষ্ট গন্তব্য যাওয়ার জন্য হলুদ ট্যাক্সি বুক করতে পারবেন যাত্রীরা। তবে শুধু হলুদ ট্যাক্সি নয়, সাদা এসি ট্যাক্সিও এই অ্যাপের আওতায় পড়ছে।
এই অ্যাপের মাধ্যমে ট্যাক্সি বুকিং প্রক্রিয়া নিয়ে যাত্রীদের ভিন্ন ভিন্ন মত। অধিকাংশ যাত্রী এই অ্যাপ সম্পর্কে জানেনই না। গাড়ি পেতে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হচ্ছে যাত্রীদের। ফলে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে তাদের। যাত্রী সাথী’ অ্যাপ চালুর উদ্দেশ্য হলো কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের সমস্ত হলুদ ট্যাক্সিকে এবার থেকে এই পরিষেবার আওতায় আনা হবে। যেখানে যে কোনও যাত্রী অ্যাপের মাধ্যমে নিজের গন্তব্যে যাবার জন্য গাড়ি বুক করতে পারবেন। যে কোনও পথচলতি হলুদ ট্যাক্সির ক্ষেত্রেও সেটা প্রযোজ্য।

ট্যাক্সি চালকদের বক্তব্য তাদের কাছে এই অ্যাপ খুব সুবিধার নয়। ট্যাক্সি চালকদের মধ্যে ৯০ শতকরা চালক পড়াশোনা জানেন না। তার ওপর অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ব্যবহার জানেন না। বেশিরভাগ ড্রাইভার বয়স্ক যারা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ব্যবহার জানেন না। অধিকাংশের কাছে কি প্যাড ফোন ব্যবহার করেন। ফলে এই অ্যাপ এর মাধ্যমে যাত্রীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে পারছেন না।
যাত্রীদের মতে সুবিধার পাশাপাশি অসুবিধাও আছে। লাইন দাড়িয়ে থাকতে হচ্ছে অনেক্ষন। অনলাইনে যেটা হয়না।
যাত্রীদের সাহায্য করার জন্যে হাওড়া পুলিশ এর ভলান্টিয়ার রয়েছে। পাশাপাশি গাড়ির নম্বর এবং গন্তব্য কোথায় সেটা লিখে রাখছেন এই ভলান্টিয়াররা।