Date : 2024-02-24

প্রকাশিত হল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি পরীক্ষার ফল।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : প্রকাশিত হল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি পরীক্ষার ফল। চলতি বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১,৫৯,২০৪ জন। পাশের হার ৭৬.৪৬ শতাংশ। প্রথম বিভাগে পাশ করেছে ৩০.৩৬ শতাংশ, দ্বিতীয় বিভাগে ২২.৮৪ এবং সাধারণ বিভাগে ২৩.২৬ শতাংশ। এই পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেছে হাওড়া জেলার ডি. খিলা নারকেলবেড়িয়া প্রাথমিক স্কুলের ছাত্র আঢ্য মালিক। মোট ৪০০ নম্বরের এই পরীক্ষায় তার প্রাপ্ত নম্বর ৪০০। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানাধিকারী যথাক্রমে পূর্ব মেদিনীপুরের বাড়বাহারপোতা পল্লীপ্রাণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী অনুদীপ্তা খান (৩৯৯) এবং উক্ত জেলার কণ্ঠিবাড় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী সৈতিকা মাইতি (৩৯৮)।

সরকারি ও সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলে প্রাথমিকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পাশ-ফেল না থাকায়, ছাত্রছাত্রীদের মেধা যাচাই এর অন্যতম পরীক্ষা হিসেবে ১৯৯২ সাল থেকে পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন পর্ষদের তরফ থেকে বৃত্তি পরীক্ষার আয়োজন করা হয়। চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা এই পরীক্ষায় বসার সুযোগ পান।বলাবাহুল্য এক ঐতিহাসিক ভাষা-শিক্ষা আন্দোলনের প্রেক্ষিতে প্রখ্যাত বিজ্ঞানী ও বরেণ্য শিক্ষাবিদ ডঃ সুশীলকুমার মুখার্জীর সভাপতিত্বে এই প্রতিষ্ঠানের জন্ম। চলতি বছর এ রাজ্যের সমস্ত জেলায় ২২০০টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে এই পরীক্ষা। এ বছর (২০২৩) ৩ থেকে ৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয় এই পরীক্ষায়।

লক্ষ্যণীয় যে, প্রথম তিন জন সরকারি প্রাথমিক স্কুলের ছাত্রছাত্রী। আরও উল্লেখ্য যে প্রথম একাদশের মধ্যে ৭ জনই সরকারি প্রাথমিক স্কুলের ছাত্রছাত্রী। পরীক্ষার বিষয় মাতৃভাষা, গণিত, সমাজবিজ্ঞান, বিজ্ঞান ও ইংরেজি। বাংলা, হিন্দী ও উর্দু ভাষার মাধ্যমে পরীক্ষা নেওয়া হয়। এ বছর বিষয়ভিত্তিক পাশের হার যথাক্রমে মাতৃভাষা-সাহিত্য (৯১.৪৮ শতাংশ) গণিত (৭৯.৯১শতাংশ), সমাজবিজ্ঞান (৯৪.৫৭ শতাংশ), বিজ্ঞান (৯৮.৩৯ শতাংশ) এবং ইংরেজি (৯৩.৫৭ শতাংশ)।

যথারীতি প্রতি বছরের মত এবারও কৃতী ৮০০ জন পরীক্ষার্থীকে রাজ্য বৃত্তি (বার্ষিক ১২০০ টাকা) ও জেলা বৃত্তি (বার্ষিক ৬০০ টাকা) সহ সম্বর্ধিত করা হবে। এর মধ্যে ১৫০ জন রাজ্য বৃত্তি ও বাকি সব জেলা বৃত্তি পাবে। আগামী ১০ মার্চ, ২০২৪ কেন্দ্রীয় সম্বর্ধনার অনুষ্ঠানটি হবে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডিরোজিও হলে’। উত্তরবঙ্গের কৃতী পরীক্ষার্থীদের সম্বর্ধিত করা হবে ১৭ মার্চ, ২০২৪ শিলিগুড়ির ‘দীনবন্ধু মঞ্চে।
মেদিনীপুর, বাঁকুড়া ও পুরুলিয়া এবং ঝাড়গ্রামের কৃতীদের সম্বর্ধিত করা হবে মেদিনীপুর শহরে ‘বিদ্যাসাগর হলে’।