Date : 2024-02-25

শেষ পর্যন্ত মিটলো বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ও রাজ্যের এডভোকেট জেনারেলের দ্বন্দ্ব।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : “বন্ধু কিশোর এর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে “- মন্তব্য বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের

কয়েক দিন,আগে আমি আপনাকে অনেক কিছু বলেছি। আমি আপনাকে অনেক বছর ধরে চিনি। প্রায় ৩৭ বছর।আমি আপনার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।
আই এম ভেরি সরি। – বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

আমায় আমার বন্ধু কিশারের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।
আমি রাগের মাথায় অনেক কিছু বলেছি।বারের সকলের জানা উচিত। আমি ক্ষমাপ্রার্থী। -বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

আমিও,ওই দিন অনেক কিছু বলেছিলাম। -কিশোর দত্ত
আপনি,যা শুনেছেন তাই বলেছেন। তবে আমি যা বলেছিলাম রাগ করে। -বিচারপতি

আপনারা জানেন না, কিশোর আমার কত উপকার করেছে। এমনও হয়েছে, কিশোর আর আমার আর এক বন্ধু না থাকলে আমি মরে যেতাম। -বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়এজি কিশোর দত্ত বলেন আমি, জয়মাল্য আরও কয়েকজন আমরা এক সাথে ঘুরে বেড়াতাম। -বিচারপতি

উল্লেখ্য কয়েকদিন আগে রাজ্যের মেডিক্যাল কলেজ গুলোতে ভর্তিরতে ভুয়ো জাতিগত শংসাপত্র সংক্রান্ত মামলাকে কেন্দ্র করে রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল ও বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা চরম পর্যায়ে পৌঁছেছিল।বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় রাজ্যের এডভোকেট জেনারেলকে বলেছিলেন, কার পাদুকালেহন করে তিনি দ্বিতীয়বার এডভোকেট জেনারেল হয়েছেন তা তিনি জানেন।সেই বিতর্কে আপাতত ইতি ঘটলো বলেই মনে করছেন আইনজীবীরা।