Date : 2020-10-27

মিছিলের আগেই হাতাহাতির অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে

কোচবিহার: দলের আইন অমান্য আন্দোলনের মিছিল শুরুর আগেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়লেন কংগ্রেসের যুব গোষ্ঠী। বুধবার কোচবিহার শহরের পুলিশ লাইন মোড় এলাকায় জেলা কংগ্রেস কার্যালয় রাজীব ভবন থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে এই ঘটনা ঘটেছে। মিছিলের সামনের দিকে কারা থাকবে তা নিয়েই কংগ্রেসের যুব গোষ্ঠীর মধ্যে ওই হাতাহাতি হয়েছে বলে সূত্রের খবর। ঘটনার জেরে সাময়িক ভাবে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। দুই পক্ষের কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি শ্যামল চৌধুরি গোষ্ঠী কোন্দলের কথা অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, “যুব কংগ্রেসের পতাকা হাতে কয়েকজন তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতী আমাদের এই কর্মসূচীকে পণ্ড কারার জন্য চক্রান্ত করতে এসেছিল।” বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অপশাসনের অভিযোগ তুলে উত্তরবঙ্গের অন্যান্য জেলার সঙ্গে কোচবিহারেও আইন অমান্য এবং জেল ভরো কর্মসূচীর ডাক দেয় কংগ্রেস। এদিন ওই কর্মসূচী পালনের জন্য দলের জেলা পুলিশ লাইন চৌপথী জেলা কার্যালয় রাজীব ভবন থেকে একটি মিছিল বের হয়। অপর দিকে, রাসমেলা মাঠ থেকে যুব কংগ্রেসের একাংশ মিছিল বের করা হয়। প্রথমে এই দুই মিছিলের কোনটা প্রথমে থাকবে তা নিয়ে শুরু বিবাদ। পরে অবশ্য রাজ্য জেলা নেতৃত্বকে সামনে রেখেই মিছিল করে জেলা শাসকের দফতরে যান কংগ্রেস কর্মীরা। অন্যদিকে, ওই আইন অমান্য আন্দোলন কর্মসূচী নিয়ে কোচবিহার জেলা শাসকের দফতরের সামনে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১০ হাজার লোককে গ্রেফতার দেখিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলা থেকে কার্যত নির্মূল হয়ে যাওয়ার পরেও এত লোককে তাঁদের কর্মসূচিতে জমায়েত করতে পারায় খুশি জেলার কংগ্রেস নেতৃত্বরা