Date : 2020-10-24

দাশনগরে ফিরল অমৃতসর ট্রেন দুর্ঘটনার ভয়াবহ আতঙ্ক

হাওড়া: দশেরার রাতে অমৃতসরে মতো ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনার বিভীষিকা এখনো ভুলতে পারেনি গোটা দেশ। এবার সেই দুঃস্বপ্নের ঘটনার হাত থেকে অল্পের জন্য রেহাই পেল হাওড়ার দাশনগরে রেল স্টেশনে উপস্থিত প্রায় শতাধিক নিত্য যাত্রী। স্টেশন মাস্টারের ভুলে বড় বিপত্তি সড় বিপদের সম্মুখীন হতে পারত যাত্রীরা। খরগপুর-হাওড়া গ্যালপিং ট্রেন ভেবে মাঝের লাইনে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয় পাঁশকুড়া লোকাল। অভিযোগ, প্ল্যাটফর্মে না দাঁড়িয়ে মাঝের লাইনে থেমে যায় ট্রেন। প্লাটফর্ম না পেয়ে তাড়াহুড়ো করে লাফিয়ে নামতে গিয়ে জখম হন বেশ কয়েকজন যাত্রী।

সেই সময়ে আপ (কারশেড) ও ডাউন দূরন্ত এক্সপ্রেস স্টেশন দিয়ে যায় ।দাশনগরে তিনটি প্লাটফর্মেই ট্রেন থাকায় মেন লাইনের যাত্রীরা আতঙ্কে ট্রেনের নেমেই চিৎকার করে ওঠে। অনেকে লাইন পার হতে গেলে যাত্রীরাই তাদের আটকায়। বাকি দুটি ট্রেন প্লাট ফর্ম ছাড়ার পরেই যাত্রীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে । প্রতিবাদে হাওড়ার দাশনগর রেল স্টেশন অবোরোধ করে যাত্রীরা। ঘটনাস্থলে জিআরপি, আরপিএফ পৌঁছালে তাদেরকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন যাত্রীরা। এর জেরে প্রায় দেড় ঘন্টা অবরোধ থাকে দাশনগর স্টেশন।

কর্মব্যস্ত সময়ে এতক্ষন অবরোধ থাকায় চুড়ান্ত দুর্ভোগের শিকার হয় নিত্য যাত্রীরা। এর জেরে খরগপুর- হাওড়া শাখায় দীর্ঘক্ষন আটকে পরে প্রায় ১৮টি লোকাল ট্রেন, দূরন্ত এক্সপ্রেস সহ মোট ৯টি দুরপাল্লার ট্রেন। নিজের ভুল স্বীকার করে নিলেও যাত্রীদের মধ্যে ব্যপক উত্তেজনা ছড়ায়। মাত্র কয়েক মিনিটের ব্যবধানে মারাত্মক ঘটনা ঘটে যাওয়ার সম্ভবনা ছিল। অমৃতসরের পরিস্থিতির স্মৃতি ফিরে আসায় ভয় পেয়ে যান যাত্রীরা। দক্ষিণ পূর্ব রেলের সিপিআরও জানিয়েছেন, এই পুরো ঘটনার তদন্ত করে স্টেশন মাস্টারের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হ