Date : 2020-10-24

গাঁটের ব্যথায় কষ্ট? অবহেলা নয় আর। কি করবেন?

ওয়েব ডেস্কঃ হাঁটুর ব্যথায় হাটাচলা বন্ধ। গাঁটের ব্যথা বা জয়েন্ট পেনে কুপোকাৎ। যে কোনও বয়সেই আসতে পারে জয়েন্ট পেনের সাঁড়াশি আক্রমণ। কারণ সব বয়সের মানুষই এই অসুখের শিকার হতে পারে। আর বয়স পঞ্চাশ পেরোলে তো আপনার নিত্যসঙ্গী এই ব্যথা। বাসে বা ট্রেনে দাঁড়িয়ে থাকতে কষ্ট কিংবা সিঁড়ি দিয়ে উঠতে বা হঠাৎ মাটিতে বসতে গেলে কষ্ট। সব কিছুতেই বাধা হয়ে দাঁড়ায় এই ব্যথা। তবে এই ব্যথাগুলি ক্রমশ বেড়ে যাওয়ার পিছনে লুকিয়ে রয়েছে বেশ কিছু রোগ। আদতে এই রোগগুলিই ব্যথার গোড়ার কথা। তাই সবার প্রথমে প্রয়োজন আসল রোগের হদিশ করা।
যেমন- (১) ইনফ্লামেশন অফ ডিস্ক- মেরুদণ্ডের অস্থিসন্ধির মাঝখানে যে ডিস্ক থাকে সেখানে ঝাঁকুনির কারণে অনেক সময়ই জ্বালা ভাব অনুভব করে থাকেন রোগী। এই সমস্যা
অল্পবয়সিদের মধ্যে দেখা যায়।
(২) লাম্বার স্পন্ডিলাইটিস- পঞ্চাশোর্ধদের একটি স্বাভাবিক সমস্যা। এক্ষেত্রে কোমরে ব্যথা নিয়ে বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকলে ব্যথা ক্রমশ বাড়বে।
(৩) ডিস্ক হারনিয়েশান- এই ধরনের সমস্যা যে কোনও বয়সেই হতে পারে। বাসে-ট্রামে হঠাৎ ব্রেক কষলে এই ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়া কোনও সময় কোমরের হাড় সরে গিয়ে
থাকলে পরবর্তীতে গাড়িতে ঝাঁকুনি বা অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকলেও এই ব্যথা বেড়ে যেতে পারে।


এই ধরণের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কাজের সময় নিজের দেহভঙ্গি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে চিকিৎসদের পরামর্শ নিন। তবে এই প্রত্যেকটি ব্যথার হাত থেকে মুক্তি পেতে চাইলে বিশেষজ্ঞরা বলছেন সেই রোগীর জন্য ফিজিওথেরাপি অত্যন্ত জরুরি। এক্ষেত্রে ভারি জিনিস বয়ে নিয়ে যাওয়া, উঁচু বালিশে শোয়া, বেশিক্ষণ ঝুঁকে কাজ করা বর্জনীয়।