Date : 2020-10-22

রাসায়নিক সার ছেড়ে জৈব সারের ব্যবহারে উদ্যোগী কাঁকসার চাষিরা

বর্ধমান: রাসায়নিক সার বাদ দিয়ে এবার জৈব সারে চাষ করতে শুরু করেল বর্ধমানের কাঁকসার চাষিরা। রাসায়নিক সারে চাষের ক্ষেত্রে মুনাফা বেশি থাকলেও জমির ক্ষতি হতে শুরু করেছিল। উর্ববরতা কমে যাওয়ায় ফসলের মান নষ্ট হচ্ছিল। চাষিদের দাবি রাসায়নিক সারে চাষ করা সব্জির চাহিদাও ক্রমশ কমছে । নানা ধরনের অসুখ বিসুখের কারণে রাসায়নিক সারে সব্জি চাষ বন্ধ করে এবার জৈব সার ব্যবহারে উদ্যোগী হয়েছে বর্ধমান জেলা প্রশাসন। রাসায়নিক সারের ব্যবহারে চর্মরোগের শিকার হতেন চাষিরা। সব্জি চাষের ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়ার ভয়ে জৈব সারের ব্যবহার করতে চাইত না চাষিরা। কিন্তু কাঁকসার চাষিরা জৈব সারের উপকারিতা অনুভব করেছে। ফলে এই সারের ব্যবহার আরো বাড়াতে বাড়ি বাড়ি জৈব সার তৈরীর জন্য কাঁকসার রক্ষিতপুরে মহিলাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়েছে এলাকার স্বনির্ভর গোষ্ঠির সদস্যরা। এছাড়া কাঁকসার বিডিও প্রশিক্ষণের বিষয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। তবে এই সারের ব্যবহারে কাঁকসার চাষিরা লাভবান হয়েছে বলেই জানিয়েছে। কাঁকসার বিডিও সুদিপ্ত ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, আগামী দিনে এভাবেই চাষিদের সুবিধার্থে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ তুলে দেওয়া হবে । এর ফলে পরিবেশ দূষণ ও মাটির গুণমান রক্ষা করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন বিডিও। কাঁকসায় জৈবসারের ব্যবহারের বিষয়টি আরও গ্রহণযোগ্য হলে পশ্চিমবঙ্গের অন্যত্রও এই পদ্ধতির ব্যবহার করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। এর ফলে স্বনির্ভর প্রকল্পের ক্ষেত্রেও বিশেষ লাভ হবে রাজ্যের।