Date : 2020-10-31

পদ্ম ফুটবে না ব্রিগেডে, জেলা সফরেই তুষ্টি…

ওয়েব ডেস্ক: সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের ডাকে বিজেপির একাধিক জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ভারতের ঐতিহাসিক জনসভার সাক্ষী রইল কলকাতার ব্রিগেড ময়দান। রাজ্য সরকারের রিপোর্ট অনুযায়ী শনিবার ব্রিগেড নজিরবিহীন জনসমাগমের সাক্ষী হয়ে রইল। সাম্প্রতিক অতীতে ব্রিগেডে গোটা দেশের এতজন হেভিওয়েট নেতা কখনও উপস্থিত হয়নি। সেই সমাবেশে আক্রমণের মূল লক্ষ্য ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

৮ ফেব্রুয়ারি সেই একই জায়গায় সভা করতে আসার কথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। ইউনাইটেড ইন্ডিয়ার সমাবেশের পর সেই একই জায়গায় সভা করতে এসে মোদী কি বার্তা দেন তার দিকেই তাকিয়ে ছিল বিজেপি নেতৃত্ব। কিন্তু আপাতত এই সভা অনিশ্চয়তার মুখে। বিজেপি সূত্রে খবর, মার্চ মাসের শেষে রাজ্যে পরীক্ষাপর্ব মিটলে ব্রিগেডে সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে ব্রিগেডের আগে রাজ্যে চারটি জনসভা করতে আসছেন তিনি। তবে ব্রিগেডে সভা নাহলেও ২৮ জানুয়ারি থেকে রাজ্য সফরে আসছেন নরেন্দ্র মোদী। প্রথমে শিলিগুড়িতে জনসভা করবেন প্রধানমন্ত্রী। তারপর ৩১ জানুয়ারি ঠাকুরনগরে ও ২ ফেব্রুয়ারি আসানসোলে সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী। ৮ই ফেব্রুয়ারি ব্রিগেডে সভা না করলেও রাজ্যের অন্যান্য জায়গায় সভা নিয়ে রবিবার রাত পর্যন্ত বৈঠক চলে বিজেপির সদর দফতরে। রাজ্য বিজেপি নেতারা ছাড়াও বৈঠকে রাজ্যে দলের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সোমবার সকালে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানান, ব্রিগেড আপাতত হচ্ছে না।

আরও পড়ুন: ক্রমশ ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে উঠছে নদীর জল

তার বদলে প্রধানমন্ত্রী রাজ্যে মোট চারটি জনসভা করবেন। অন্য কেন্দ্রীয় নেতারাও আসবেন। উনিশে জানুয়ারি রাজ্যের শাসকদলের মহা ব্রিগেড সমাবেশ হওয়ার পর ব্রিগেড ভরানো বিজেপির কাছে একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে পাল্লা দিতে সবরকম রণকৌশল গ্রহণ করলেও শেষ পর্যন্ত মোদীর ব্রিগেড সভা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেওয়ায় স্বভাবতই হতাশ পদ্ম শিবির। শুধু প্রধানমন্ত্রীর ব্রিগেড বাতিল নয়, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর রাজ্য সফর সূচীতেও কাটছাঁট করল বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। শারীরিক অসুস্থতার কারণে আপাতত রাজ্যে দুটি জনসভা করে দিল্লি ফিরে যাবেন মোদীর সেনাপতি। বিজেপি সূত্রে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার মালদায় সভা করতে রাজ্যে পৌঁছে গেছেন অমিত শাহ। বুধবার ঝাড়গ্রামেও সভা করবেন তিনি। তবে কৃষ্ণনগর, সিউড়ি ও জয়নগরে তাঁর সভা বাতিল করা হয়েছে। এর বদলে সভাগুলিতে প্রধান বক্তা হবেন বিজেপি নেত্রী স্মৃতি ইরানি। তবে কেন শেষ মুহূর্তে শাহের সফরসূচি বদল তা জানাননি বিজেপি নেতারা।