Date : 2020-10-23

কালবৈশাখির দাপটে লন্ডভন্ড শহর, বিপর্যস্ত ট্রেন , আগামী ৪৮ ঘন্টা দুর্যোগের আশঙ্কা

কলকাতা: আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস মতোই সোমবার ভোররাত্রি থেকে তুমুল ঝড়-বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত কলকাতা সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গ। পশ্চিমি ঝঞ্ঝা ও বঙ্গোপসাগরে তৈরি নিম্নচাপের জেরে কালবৈশাখী আছড়ে পড়ায় কলকাতা ও সংলগ্ন অঞ্চলে প্রবল ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়। ঝড়ের দাপটে কলকাতা সহ বিধাননগরের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তার ধারে একাধিক গাছ উপড়ে পড়েছে। মানিকতলার, বাগবাজার সহ উত্তর কলকাতার বিভিন্ন এলাকায় গাছ ভেঙে পড়ায় যান চলাচল ব্যহত হয়েছে।

এই সব ভেঙে পড়া গাছের ডালের সঙ্গে বিদ্যুতের তার বিপদজনকভাবে রাস্তার উপর পড়ে থাকায় রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এছা়ড়া শুকনো গাছের পাতা আর ভেঙে পড়া ডালপালার সাথে বৃষ্টির জল মিশে রাস্তাঘাটের জঞ্জালের চেহারা প্রকট হয়েছে। কলকাতা পুুরসভার সাফাই কর্মীরা ইতিমধ্যে ভেঙে পড়া গাছ ও শুকনো পাতা সরানোর কাজ শুরু করে দিয়েছে। শুধু শহরে নয়, দক্ষিণবঙ্গের অন্যান্য জেলাগুলিতে একই দৃশ্য সামনে এসেছে। এর পাশাপাশি যথারীতি বিপর্যস্ত ট্রেন চলাচল।

এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে, প্রবল ঝড়ে হাওড়া-বর্ধমান কর্ডলাইনে বিভিন্ন স্টেশনে ওভারহেড তাঁর ছিঁড়ে গিয়েছে। অনেক স্টেশনেই রেললাইনে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন। ফলে লোকাল ট্রেন চলাচলে সমস্যা দেখা গিয়েছে। সপ্তাহের প্রথম কাজের দিনেই সকাল থেকে হাওড়া-বর্ধমান কর্ড লাইনে ধীরগতিতে চলছে লোকাল ট্রেন। ভোর রাত থেকে খারাপ আবহাওয়ার জেরে আটকে পড়েছে গণদেবতা ও কোলফিল্ড এক্সপ্রেসও। দুরপাল্লার বেশ কিছু ট্রেন দেরিতে চলছে বলে খবর। একই পরিস্থিতি শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায়। বিভিন্ন স্টেশনে ওভারহেড তার ছিঁড়ে ব্যাহত ট্রেন চলাচল। প্রবল ঝড়ে বড় বড় ফ্লেক্স এসে পড়েছে ওভারহেডের তারে।

সকাল থেকে শিয়ালদহ স্টেশনের ১২ নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে কোনও ট্রেন চলাচল করছে না ফলে সমস্যায় পড়েছেন নিত্যযাত্রীরা। দমদম স্টেশনের কাছেও লোকাল ট্রেনের গতি ধীর। সবমিলিয়ে অকাল কালবৈশাখীর জেরে সোমবার সকাল থেকে বিপাকে রেলযাত্রীরা। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুসারে আগামী ৪৮ ঘন্টা দুর্যোগ চলবে কলকাতা সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে।

বঙ্গোপসাগরে ঘনিভূত নিম্নচাপের জেরে দক্ষিণবঙ্গের জেলাতে মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে, শহর ও শহরতলির অঞ্চলগুলিতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত চলবে, সঙ্গে থাকবে ঝড়ো বাতাসের দাপট। ইতিমধ্যেই শহরে কোথাও কোথাও ঘণ্টায় ৫০ কিলোমিটার বেগেও ঝড় হয়েছে। এছাড়া রাজ্যের পশ্চিমের জেলাগুলিতে চলবে বৃষ্টি। রবিবার বিকেলে বৃষ্টি হয়েছে বর্ধমান, হুগলি, বাঁকুড়া ও মেদিনীপুরের একাংশে।