Date : 2020-12-01

গড়িয়াহাটের ফুটপাত প্লাস্টিকমুক্ত করার অভিযান পুরসভার

কলকাতা: বহুবার হকার উচ্ছেদের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে সরকার। হকারের ভিড়ে শহরে ফুটপাতে পা ফেলা দায়। কিন্তু রুটি-রুজির কথাও তো ভাবতে হয়। ফুটপাত দখল করে তারা দোকান বানায় দিনের শেষে পরিবারের মুখে অন্ন তুলে দিতে। এই অজুহাতে সরকারের পক্ষে সম্ভব হয় না শহরে হকার মুক্ত ফুটপাত গড়ে তুলতে। তিলোত্তমার সংস্কৃতি সৌন্দর্যের সঙ্গে পথের ধারে বসে থাকা এই বিকিকিনির সম্ভার অবিচ্ছেদ্য হয়ে গছে। কিন্তু বিপদও বাড়ছে সেই ভাবেই। রোদ বৃষ্টি আটকাতে শহরের হকারদের ব্যবহৃত প্লাস্টিকে গোটা শহর ক্রমশ জতুগৃহে পরিনত হয়ে গেছে। নিত্যদিন আগুন লাগার ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছে প্রশাসন। হকারদের রোজগার বন্ধ করাও চববে না আবার শহরকেও বিপদ মুক্ত রাখতে হবে, এই দুই বিষয় চ্যালেঞ্জে পরিনত হয়েছে কলকাতা পুরসভার কাছে।

কিছুদিন আগেই গড়িয়াহাটে প্রসিদ্ধ বস্ত্রবিপনিতে আগুন লাগায় উঠে এসেছে হকারদের যথেচ্ছ প্লাস্টিক ব্যবহারের ঘটনা। অগ্নিকান্ডে বেশ কয়েকটি ফুটপাতের দোকান পুড়ে গেছিল। পরিস্থিতি সামলাতে হকারদের চাকা লোগানো অস্থায়ী দোকান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই সেই সমস্যা সমাধানে এবার ফুটপাত জুড়ে থাকা হকারদের প্লাস্টিক ব্যবহারে নিষেধজ্ঞা জারি করল কলকাতা পুরসভা। মঙ্গলবার কলকাতা পুরসভার মেয়রের নেতৃত্বে ফুটপাতে হকারদের প্লাস্টিক খুলে দেওয়ার অভিযান শুরু করা হয়। হকারদের উচ্ছেদ না করে তাদের দোকানো টাঙানো প্লাস্টিক খুলে দেওয়া হয় পুলিশের সাহায্যে। তবে এর ফলে রোদে বা বৃষ্টিতে দোকান চালানোর ব্যপারে সমস্যায় পড়তে হতে পারে হকারদের। কিন্তু শহরে অগ্নিকান্ড রুখতে এই ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়া উপায় নেই কবলে মনে করছে কলকাতা পুরসভা।