Date : 2020-10-26

এবার #MeToo-তে মুখ খুললেন মাধুরী দীক্ষিত

ওয়েব ডেস্ক: #MeToo… বিনোদন জগতে তৈরি করেছে তোলপাড়। একে একে বহু সেলিব্রেটিই মুখ খুলেছে চেনা মানুষের অচেনা দিকের পরিচয় তুলে ধরতে। এবার সেই অন্দোলনের পথযাত্রী হলেন বলিউডের এক বিখ্যাত অভিনেত্রী। জানালেন, অলোকনাথ, সৌমিক সেনের মতো মানুষের সঙ্গে নিকট সম্পর্কই ছিল তাঁর।

কিন্তু, #MeToo আন্দোলনের জেরে তাঁদের অজানা দিক জানার পর বেশ অস্বস্তিই হয়েছিল অভিনেত্রীর। অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিত আগেই অলোক নাথ এবং সৌমিক সেনের সঙ্গে কাজ করেছেন। কিন্তু অলোক নাথ এবং সৌমিক সেনের বিরুদ্ধে #MeToo সংক্রান্ত অভিযোগ ওঠার পরে তিনি প্রচণ্ড শক পেয়েছিলেন বলে পিটিআইকে জানিয়েছেন মাধুরী। তিনি বলেন, ‘কাউকে অনেক বছর ধরে চেনার পরে তাঁর সম্পর্কে এই রকম খবর শুনলে অবশ্যই হতভম্ব বোধ হয়।’ অলোকনাথের নামেই #MeToo অভিযোগের কথা জেনে প্রথমে বিশ্বাস করতে পারেননি মাধুরী।

ঠিক ততটাই বিস্মিত হয়েছিলেন #MeToo আন্দোলনে পরিচালক সৌমিক সেনের নাম ওঠায়। মাধুরীর সাম্প্রতিক হিট ছবি ‘গুলাব গ্যাং’-এর পরিচালক সৌমিক। মাধুরী দীক্ষিত অলোক নাথের সঙ্গে নব্বইয়ের দশকের প্রথম দিকে ‘দয়াবান’, ‘জামাই রাজা’, ‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘হাম তুমহারে হ্যায় সনম’ ইত্যাদির মতো বেশ কয়েকটি হিট সিনেমা করেছিলেন। তিনি মর্মাহত হয়ে জানিয়েছেন, ‘যে মানুষকে তুমি চেনো তাঁর সম্পর্কে আচমকা এই ধরনের কথা যথেষ্ট দুর্ভাগ্যজনক। প্রথমে বিশ্বাসই হয় না আমি সেই মানুষটাকেই চিনি।’

প্রসঙ্গত, অলোকনাথের বিরুদ্ধে #MeToo অভিযোগ এনেছিলেন চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক বিনতা নন্দা ও অভিনেত্রী সন্ধ্যা মৃদুল। সৌমিক সেনের বিরুদ্ধে #MeToo অভিযোগ দায়ের করেন তিনজন মহিলা। সম্প্রতি অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত অভিনেতা নানা পটেকারের বিরুদ্ধে একটি বহুদিন আগে ঘটে যাওয়া যৌন হেনস্থার অভিযোগকে সামনে নিয়ে আসার পরে ভারতে #MeToo আন্দোলন নতুন মাত্রা পায়।