Date : 2020-10-22

ভারতের এয়ারস্ট্রাইকে শোকের মধ্যেও স্বস্তির হাসি শহিদ পরিবারে

নদীয়া: ১৪ই ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সেনা জওয়ানের কনভয় লক্ষ্য করে হামলা চালায় জঙ্গিরা। হামলার ঘটনায় ৪০ জন জওয়ানের প্রাণ যায়। শোকের পাশাপাশি তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়ে গোটা দেশ। শোকের ছায়া নেমে আসে এই রাজ্যের দুই শহিদ বাবলু সাঁতরা ও সুদীপ বিশ্বাসের পরিবারের উপর। কিন্তু হাত গুটিয়ে বসে থাকেনি ভারতীয় সেনা। আঘাতের উপযুক্ত উত্তর ফিরিয়ে দিতে ঘটনার ১২ দিনের মধ্যে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোটে জইশ জঙ্গি ঘাটি ধ্বংস করে বায়ু সেনার ১২টি বিমান। নিয়ম মেনে সেদিনই চলছিল কাশ্মীরের শহিদ সুদীপ বিশ্বাসের বাড়িতে শ্রাদ্ধানুষ্ঠান। মঙ্গলবার ভোরে জঙ্গিঘাঁটি ধ্বংসে ভারতীয় বায়ুসেনার সাফল্যে চরম শোকের মধ্যেও আশা ফিরে পেয়েছে সুদীপ বিশ্বাসের পরিবার।

ভারতীয় সেনাকে আবেদন জানিয়ে তারা বলেন, সব জঙ্গি নিকেশ করুক সেনাবাহিনী, তবেই সুদীপের আত্মার শান্তি লাভ হবে। ভারত সরকারের এই পদক্ষেপ নিয়ে কোন মন্তব্য করতে চায়নি হাওড়ার বাউড়িয়ার বাসিন্দা শহিদ বাবলু সাঁতরার স্ত্রী মিতা সাঁতরার। তিনি এই বিষয়ে মন্তব্য করে বলেন, যুদ্ধ কোন সমাধান নয়। যাদের ওপর গোটা দেশের সুরক্ষা নির্ভর করে সেই জওয়ানদের সুরক্ষা নিয়ে তিনি সওয়াল করেন। ভিন্ন মত নদিয়ার হাঁসপুকুরিয়ার বিশ্বাস পরিবারের। পুলওয়ামা হামলায় প্রাণ হারান এই পরিবারের ছেলে, সাতাশ বছরের সুদীপ বিশ্বাসের। সুদীপের বোন ঝুম্পা বিশ্বাস বলেন, ‘আমরা খুশি। পৃথিবীর মানচিত্র থেকে পাকিস্তানকে মুছে দেওয়া উচিত।’