Date : 2019-08-26

নার্সিং কাউন্সিলের নির্দেশে কুকুর কান্ডে অভিযুক্ত ছাত্রীদের হতে পারে কড়া শাস্তি

কলকাতা: এনআরএস-এ কুকুরছানা খুন কান্ডের ২৫ দিন কেটে গেলেও ঘটনাটি এখনো তাজা ক্ষতের মতো হয়ে আছে পশু প্রেমীদের মনে। দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে টানা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। এই দাবিতেই মঙ্গলবার নার্সিং কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া ঘটনায় দোষী দুই নার্সিং ছাত্রীর বিরুদ্ধে কড়া শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান। তবে এখনো পর্যন্ত কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সে বিষয়ে কিছুই জানায়নি নার্সিং কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া। স্বাস্থ্য ভবনের তরফে আগেই নির্দেশ দিয়ে তাদের সাসপেন্ড করার কথা বলা হয়েছে। সেই অনুসারে তাদের আগামী ২ মাস জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে নার্সিং কোর্সের ক্লাস থেকে। তদন্ত শেষ না হলে তাদের কোন ভাবেই ক্লাস করতে দেওয়া যাবে না এমনটাই নির্দেশ দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। হাসপাতালের সামনে থেকে কালো প্লাস্টিকের প্যকেটে মোড়া অবস্থায় ১৬ টি কুকুর ছানার রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয়। ১৩ জানুয়ারি ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসতেই শহরের পশুপ্রেমীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন দোষীদের শাস্তির দাবিতে। কুকুর ছানাগুলির মৃত্যু যে অস্বাভাবিক ছিল রক্তাক্ত দেহগুলি দেখে তা সহজেই অনুমান করে পুলিশ। যদিও ঘটনার দিন দোষীদের ধরা না গেলেও পরদিন ঘটনার পূর্ণাঙ্গ ভিডিও স্যোশাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে আসতেই বিষয়টির সমস্ত রহস্য সামনে চলে আসে। পশুপ্রেমীদের বিক্ষোভের জেরে এন্টালি থানার পুলিশ গ্রেফতার করে অভিযুক্ত দুই নার্সিং ছাত্রীকে। আপাতত জামিনে মুক্তি পেলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কোন ভাবেই তারা পঠনপাঠনের সঙ্গে যুক্ত হতে পারেননি। ধৃত ওই দুই ছাত্রীকে জেরার মুখে উঠে এসেছে কুকুর হত্যাকান্ডে জড়িত আরো তিনজনের নাম। যদিও এখনো তাদের বিরুদ্ধে কোন রকম শাস্তিমূলক পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।