Date : 2020-10-26

দুই শহিদের পরিবারের জন্য পাঁচ লক্ষ টাকা সাহায্য ঘোষণা রাজ্যের

কলকাতা: কাশ্মীর উপত্যকায় জঙ্গি হামলার ঘটনায় শহিদদের পরিবারের জন্য আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার নবান্নে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে একথা জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই উত্তর প্রদেশ, ওড়িশা সহ অন্যান্য রাজ্যে শহিদ পরিবারের জন্য সাহায্য ঘোষণা করেছে সেখানকার সরকার। শহিদ পরিবারগুলিকে পাঁচ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য করার পাশাপাশি পরিবারের একজনকে চাকরি দেওয়ার কথাও বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন মুখ্যমন্ত্রী সংবাদ মাধ্যমকে জানান, শহিদ পরিবারের পাশে আছে রাজ্য সরকার। জইশ জঙ্গির আত্মঘাতী হামলায় এই রাজ্যের দুই বীর সন্তান হাওড়ার বাবলু সাঁতরা ও নদীয়ার সুদীপ বিশ্বাস শহিদ হন। ঘটনার এক সপ্তাহ কেটে যাওয়ার পরেও ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে গোটা দেশ। চলছে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ। তবে গুজব ছড়ানোর বিষয়কে সামনে এনে মুখ্যমন্ত্রী এদিন নবান্ন থেকে বার্তা দেন, “কোনওভাবে অশান্তি, সাম্প্রদায়িক উসকানি বরদাস্ত করা হবে না। কলকাতায় মাত্র একটি ঘটনা ঘটেছে। আমরা কড়া ব্যবস্থা নিয়েছি। কাশ্মীরিরা বলেছেন, কলকাতায় থেকে তাঁরা খুশি। নিশ্চিন্ত।” এই প্রসঙ্গ তুলে তিনি রাজ্যবাসীকে গুজবে কান না দিতে অনুরোধ করেন। এমনকি নাম না করে বিজেপিকে কটাক্ষ করে কাশ্মীর ইস্যুতে রাজনীতি করার অভিযোগ করেন। জাত, ধর্ম নির্বিশেষে একক ভাবে সন্ত্রাসবাদের বিরোধীতা করতে বলেন তিনি। এবং ঐক্যবদ্ধ ভারতের অঙ্গিকার নিয়ে আগামী দিনে বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তির বিরুদ্ধে এগিয়ে যাওয়ার বার্তা দেন। প্রসঙ্গত, বুধবার যানবাজারে মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআরের যুদ্ধবিরোধী মিছিলে হামলা চালায় একদল অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতী৷ যাকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হয় ধর্মতলা চত্ত্বরে৷ সংগঠনের কর্মীদের অভিযোগ, হামলাকারীরা আরএসএস ও বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কর্মী৷ এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ৷ নবান্ন থেকে ফেরার পথে এই ঘটনারও কঠোর সমালোচনা করে মুখ্যমন্ত্রী জানান, দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনকে৷