Date : 2020-10-30

“বিকিনি” কিন্তু বুড়িয়ে গেছে…

ওয়েব ডেস্ক: বিকিনিতে নায়িকারা ধরা দিলেই সে ছবি ভাইরাল হতে বাধ্য। ছবি বা সিনেমার পর্দায় বিকিনি পরা লাস্যময়ী সুন্দরীদের দেখে অনেকেরই রক্তচাপ বেড়ে যায়। মেয়েদের আল্ট্রা-মডার্ন ফ্যাশনেবল পোশাকের তালিকায় বিকিনি সবচেয়ে উপরে।

কিন্তু জানেন কি, বিকিনি মোটেও হাল ফ্যাশানের পোশাক নয়, বরং ‘মান্ধাতার আমলের’ও অনেক আগের পোশাক। অনেকেই জানেন যে, বিকিনির আবিষ্কারক ফরাসি ইঞ্জিনিয়ার লুই রিওয়ার্ড।

১৯৪৬ সালে মায়ের (লজাঁরি) অন্তর্বাস বুটিক চালানোর সময় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অংশ নেওয়া সেনাদের ইউনিফর্ম তৈরির জন্য কেনা অব্যবহৃত কাপড় দিয়ে ‘টু-পিস সুইমস্যুট’ তৈরি করেন রিওয়ার্ড। প্রশান্ত মহাসাগরের দ্বীপ ‘বিকিনি অ্যাটলে’ অনুষ্ঠিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক পরীক্ষার মহরার কথা মাথায় রেখে এই ‘টু-পিস’-এর নাম রাখেন বিকিনি।

১৯৪৬ সালে বিকিনিকে প্রথম বানিজ্যিক ভাবে বাজারে নিয়ে আসেন ফরাসি ফ্যাশন ডিজাইনার জ্যাকুইস হেইম। সে সময় রীতিমতো ‘ভাইরাল’ হয়েছিল এই পোশাক। পরবর্তীকালে সারা বিশ্বে দ্রুত জনপ্রিয়তা অর্জন করে এই ‘টু-পিস’।

কিন্তু বিকিনি ‘আবিষ্কার’-এর এই ধারণা সম্পূর্ণ বদলে যায়, যখন ১৯৫০ সালে প্রত্নতত্ত্ববিদেরা সিসিলির পিয়াজ্জা আর্মেনিয়া অঞ্চলে, একটি সুপ্রাচীন রোমান দুর্গে কাজ করছিলেন। সে সময় তাঁদের নজরে আসে দুর্গের কুঠুরির দেওয়ালে প্রায় ৩৫০০ বছর আগেকার একটি ম্যুরাল (দেওয়াল ভাস্কর্য)। ওই ম্যুরালটি দেখে রীতিমতো চমকে যান প্রত্নতত্ত্ববিদরা। কারণ, ওই দেওয়াল চিত্রে পর পর দাঁড়িয়ে বিকিনি পরা প্রাচীন রোমান নারীরা।

বিকিনি থাকার সব চেয়ে প্রাচীন প্রমাণটি পাওয়া যায় তাম্র যুগে। সে সময়ের দক্ষিণ আনাতোলিয়ার এক অংশে ‘কাতাল হোইউক’ নামের এক দেবীর পোশাক এখনকার বিকিনির সঙ্গে হুবহু মিলে যায়। এ ছাড়াও, পম্পেইয়ে রোমান দেবী ভেনাসের বিকিনি পরিহিত থাকার প্রমাণ খুঁজে পেয়েছেন প্রত্নতত্ত্ববিদরা।