Date : 2020-07-15

কাটল না জট, ফের স্থগিত টেট

ওয়েব ডেস্ক: রাজ্যে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জটিলতা অব্যহত। প্রশ্নপত্রে ভুল থাকার জেরে পরীক্ষার্থীরা কত নম্বর পাবে বা পাবে না তাই নিয়ে সমাধান না মেলায় আপাতত ৪ সপ্তাহের স্থগিতাদেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। এদিন শীর্ষ আদালত জানিয়ে দেয় এই সময়ের মধ্যে কোন রকম নিয়োগ প্রক্রিয়াও চালানো যাবে না। প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে টেট পরীক্ষায় মোট ১১ টি প্রশ্নে ভুুল থাকায় এই সমস্যা তৈরি হয়েছে। মঙ্গলবার এই মর্মে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। এই সময়ের মধ্যে মামলার সব পক্ষকে নোটিস দিয়ে আগামী ১ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে শীর্ষ আদালত। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে ৪০ হাজার প্রথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্য টেট পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি জারি করে রাজ্য সরকার। ২০ লক্ষ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় বসেন, কিন্তু পরীক্ষায় একাধিক ভুল প্রশ্ন থাকায় হাইকোর্টে মামলা করেন। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষকে আদালত নির্দেশ দেয় অভিজ্ঞ শিক্ষক দিয়ে সমস্ত প্রশ্ন ও উত্তর পত্র পরীক্ষা করানোর জন্য। এমনকি আদালতের তরফে বলা হয় ভুল প্রশ্নের দায়িত্ব নিতে হবে রাজ্য সরকারকেই। এক্ষেত্রে যারা ভুল প্রশ্নে উত্তর দেওয়ার জন্য পূর্ণমান পেয়ে চাকরি পাওয়ার সীমায় পৌঁছবে তাদেরও চাকরি দিতে হবে রাজ্য সরকারকে। এর পরেই ডিভিশন বেঞ্চে মামলা করেন বসির আহমেদ নামে এক পরীক্ষার্থী। তার দাবি, প্রশ্নে ভুল থাকার ‘সুফল’ কেন সব পরীক্ষার্থী পাবেন না। এই মামলা খারিজ করে সুপ্রিম কোর্ট শিক্ষক নিয়োগ পদ্ধতির উপরই স্থগিতাদেশ দেন। আগামী ৪ সপ্তাহ পর এই মামলার ফের শুনানি হবে বলে জানিয়েছে শীর্ষ আদালত।