Date : 2021-05-09

বিশ্বের দরবারে সর্বশ্রেষ্ঠ উৎসবের স্বীকৃতি পেতে চলেছে শারদোৎসব

কলকাতা: বাংলা মানেই বারো মাসে তোরো পার্বন।

শ্রেষ্ঠত্বের নিরিখে শারদোৎসবের সমতুল্য উৎসব বাংলায় নেই। শারদোৎসবের সঙ্গে জড়িয়ে আছে বাঙালির ঐতিহ্য আর সাবেকিয়ানার স্মৃতি, রয়েছে এমন কিছু রীতি-রেওয়াজ যা বাঙালির সনাতন ঐতিহ্যের ধারক বাহক।

আবেক ঐতিহ্য মিশ্রিত শারদোৎসব বিশ্বের দরবারে সমাদৃত হয়ে এসেছে বহুদিন ধরে।

এবার সেই মুকুটে নতুন পালক সংযোজন করল ইউনেস্কো।

২০২০র মধ্যে বিশ্ব সংস্কৃতির তালিকায় উঠে আসতে চলেছে বাঙালির সেরা উৎসব দুর্গাপুজোর নাম।

এবার ইউনেস্কোর তরফে বিশ্বের সংস্কৃতি কেন্দ্রগুলির উপর বিশেষ নজর দেওয়ায় তাতে উঠে এসেছে ভারতের বেশ কয়েকটি উৎসবের নাম।

সব উৎসবকে পিছনে ফেলে উঠে এসেছে বাঙালির দুর্গাপুজের নাম।

দুর্গাপুজের মধ্যে বহু সংস্কৃতির মেল বন্ধন জড়িয়ে আছে।

একটি উৎসবকে কেন্দ্র করে এত বৈচিত্রের সমাহার ভারতের বা বিশ্বের অন্য কোন উৎসবে সচরাচর চোখে পড়ে না।

কলকাতার দুর্গোৎসবকে বিশ্বের দরবারে শ্রেষ্ঠ উৎসবের তালিকায় পৌঁছে দিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছেন কলকাতার ফোরাম ফর দুর্গোৎসবের সদস্যরা।

এই কমিটির সঙ্গে জড়িত আছে কলকাতার নামিদামি কয়েকটি ক্লাবের পুজো উদ্যোক্তা এবং কয়েকজন বিশিষ্ট শিল্পী।

কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের সদস্যরা এই নির্বাচন প্রক্রিয়ার সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন।

বাংলার দুর্গাপুজোর সঙ্গে ভারতের সমস্ত প্রান্তের মানুষই পরিচিত।

বহু বিশ্লেষণের পর বাঙালির উমা বন্দনা মন জয় করেছে বিচারকদের এবং ভারতীয় সংস্কৃতির মধ্যে সবচেয়ে বৈচিত্রপূর্ণ উৎসবের তকমা অর্জন করতে পাড়ি দিয়েছে আন্তর্জাতিক সম্মান অর্জনে।

রাজ্যে তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর বাঙালির শারদোৎসবের শেষে বিসর্জন শোভাযাত্রার অয়োজন করা হয়।

এই শোভাযাত্রাকে আন্তর্জাতিক মান দিতে সবরকম বাবে সাজিয়ে তুলতে উদ্যোগ নেয় পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

শুধু শহরের বড় বড় পুজো কমিটিগুলিই নয়, শহরতলি এবং গ্রামের বহু পুজো কমিটিকে সম্মান জানানো হয় এই শোভাযাত্রা উৎসবে।

বিগত তিনবছর ধরে রেড রোডে পুজো কার্নিভাল-এর আয়োজন করা হচ্ছে।

এই উৎসব বিশ্বমানে পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টায় সব রকম উদ্যোগ গ্রহণ করেছে রাজ্য সরকার।

এরই স্বীকৃতি স্বরূপ ইউনেস্কোর সংস্কৃতি বিভাগের তালিকায় নাম তুলে ফেলল দুর্গোৎসব।

October 11, 2020, 7:49 am

October 11, 2020, 7:32 am

October 11, 2020, 5:22 am