Date : 2021-06-21

“উনি এক্সপায়ারি প্রাইম মিনিস্টার” পাল্টা প্রচার সভা থেকে গর্জে উঠলেন মমতা

কোচবিহার : লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যে প্রচার সভায় মাস্টার স্ট্রোক দিতে ছাড়ল না বিজেপি। একদিনে ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’ স্লোগানে রাজ্যে উত্তর থেকে দক্ষিণের গেরুয়া শিবিরকে চাঙ্গা করতে দুটি জনসভায় যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী। শিলিগুড়ির পর কলকাতার ব্রিগেড ময়দান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন মোদী।

থেমে থাকেননি মুখ্যমন্ত্রীও, ব্রিগেডে বিজেপির প্রচারের  পাল্টা নির্বাচনী প্রচার সভা করলেন দিনহাটা থেকে, উত্তরে মমতা দক্ষিণে মোদী, খাঁ খাঁ রোদ্দুরের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ে রাজনীতির গনগনে আঁচে পুড়ছে গোটা বাংলা। নজিরবিহীন ভাবে একইদিনে পরস্পর বিরোধী শিবির তৃণমূল ও বিজেপির জনসভা দেখলো রাজ্য।

“ম্যায় ভি চৌকিদার” স্লোগানে ভাসল ব্রিগেড

রাজ্যে উন্নয়নের স্পিড ব্রেকার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বায়ুসেনার অভিযানে ব্যথিত হয়েছেন তিনি, এছাড়া চিটফান্ড সহ একাধিক ইস্যুতে শিলিগুড়ির সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সুর চড়াতে থাকেন নরেন্দ্র মোদী। মোদীর অভিযোগের একের পর এক জবাব দিতে কোচবিহারের দিনহাটার সভা বেছে নেন মুখ্যমন্ত্রী।

সভার শুরুতে নরেন্দ্র মোদীকে তিনি এক্সপায়ার্ড প্রাইম মিনিস্টার বলে কটাক্ষ করেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন দিনহাটার প্রচার মঞ্চ থেকে একের পর আক্রমণের তীর ছুঁড়ে দেন মোদীর উদ্দেশ্যে।

টাকা দিয়ে ভোট কেনা যাবে না, কেউ ভোট দেবে না বিজেপিকে, জনগনের টাকা লুট করেছে বিজেপি। নির্বাচন কমিশনের নিষেধজ্ঞা সত্ত্বেও ভারতীয় সেনা প্রসঙ্গে কথা বলেছেন মোদী। ” আক্রমণাত্মক সুরে মমতা এদিন বলেন, “বাংলায় এনআরসি চালু করতে দেব না। আমি বন্দুকের সামনে দাঁড়িয়ে লড়াই করতে প্রস্তুত আছি। বাংলার সঙ্গে পাঙ্গা নিয়ে লাভ নেই। আগে দিল্লি সামলান।”

দিনহাটার সভায় জনগনের উদ্দেশ্যে ভোট প্রার্থনা করে স্লোগান তুলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “জোড়াভোট দিন, দিল্লিকে বদলে দিন। মোদিকে সরিয়ে দিন।” কৃষিঋণের প্রসঙ্গে মোদীকে পাল্টাকটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, “রাজত্বে ১২০০০ কৃষক আত্মহত্যা করেছে। বিজেপি লুটেরাদের টিকিট দেয়। অস্ত্রব্য়বসায়ীদের টিকিট দেয়।আমরা মিথ্যা বলি না, কুৎসা করি না, দাঙ্গা করি না। “পাশাপাশি ১১০০ কোটি টাকা দিয়ে ছিটমহল উন্নয়ন এবং ছিটমহলের জমি জট কাটানোর উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেন তিনি।

এদিন দিনহাটার সভা থেকে নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সরাসরি বির্তকসভায় যোগ দিয়ে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে চান বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপিকে সরাসরি তোপ দেগে বলেন, “৪২ এ ৪২ টি আসন পাবে তৃণমূল। ৪২টি আসনের মধ্যে একটি আসন পেয়ে দেখাক বিজেপি।”