Date : 2019-06-26

আত্মপক্ষ সমর্থনে সুপ্রিমকোর্টে হলফনামা রাজীবের

কলকাতা: আত্মপক্ষ সমর্থন করে সুপ্রিমকোর্টে হলফনামা জমা দিলেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনর রাজীব কুমার। হলফনামায় বিস্তারিত ভাবে উল্লেখ করে তিনি জানান, শিলঙে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার জেরার মুখে সবরকম সহায়তা করেছেন তিনি। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে কাজ করছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি জিজ্ঞাসাবাদের ভিডিও রেকর্ডিং আদালতের পেশ করে তা পরীক্ষা করার অনুরোধ জানান।

রাজীবের এই হলফনামার কপি ইতিমধ্যে সিবিআই-এর কাছে পাঠানো হয়েছে। উল্লেখ্য, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশেই শিলঙে সিবিআই-এর মুখোমুখি হন প্রাক্তন নগরপাল রাজীব কুমার, কিন্তু জিজ্ঞাসাবাদে সঠিক সহযোগিতা করেননি রাজীব, তাই তাকে তদন্তকারী সংস্থা নিজের হেফাজতে নিয়ে জেরা করতে চায় বলে সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা জমা দেয় সিবিআই।

এরপর আত্মপক্ষ সমর্থন করে পাল্টা হলফনামা দেন রাজীব কুমার। সূত্রের খবর, এই প্রসঙ্গে তিনি বারবার ভিডিও রেকর্ডিং-এর কথা উল্লেখ করে বলেছেন, ওই রেকর্ডিং তিনি সেচ্ছায় করিয়েছিলেন। রেকর্ডিং সিবিআই-এর কাছেও আছে।

সিবিআই-এর প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর তিনি দিয়েছেন বলেও তিনি হলফনামায় জানান। স্বভাবতই প্রশ্ন উঠছে, টানা ৫ দিন ৪০ ঘন্টা জেরা করার পরে সিবিআই রাজীবের সহযোগিতার কথা বললেও তবে অসহযোগীতার কথা ফের কেন উঠছে। রাজীব কুমার এই প্রসঙ্গে পাল্টা প্রশ্ন করে বলেন, কুনাল ঘোষের চিঠির ভিত্তিতেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করে সিবিআই।

তথ্য-প্রমান নষ্টের অভিযোগ থাকলে তা আগেই নিম্ন আদালতে কেন জানায়নি সিবিআই। বিধাননগর থানার তরফে সারদা কান্ডের সমস্ত বৈদ্যুতিন প্রমান পরীক্ষা করার ভার সেবিকে দেওয়া হয়েছিল। তিনি হলফনামায় উল্লেখ করেন, আদালতে বারবার বয়ান বদলে ফেলছে সিবিআই, ফলে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এর থেকেই বোঝা যায়, উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে কাজ করছে সিবিআই।

এছাড়া রাজীব কুমার কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এবং মুকুল রায়ের ফোনে বার্তালাপের প্রসঙ্গটি তুলে ধরে ৪ আইপিএস অফিসারকে সরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনার কথাও জানান। সূত্রের খবর, আগামী ১৫ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টে ফের মামলার শুনানি হবে।