Date : 2020-09-27

অন্ধ্রে অস্তাচলে ‘চন্দ্র’

ওয়েব ডেস্ক: সংবাদমাধ্যমের বুথ ফেরৎ সমীক্ষার ফলাফল কার্যত অশনি সংকেত দিয়েছিল বিরোধী জোট শিবিরকে। “মহাগাঠবন্ধন” কে চ্যালেঞ্জ করে বিপুল সংখ্যক ভোটে জয়ী হয়ে দেশে ফের সরকার গড়তে চলেছে এনডিএ, এমনই ইঙ্গিত উঠে এসেছিল সমীক্ষায়।

২৩ মে সপ্তদশ লোকসভা ভোটের ফলাফল গণনা শুরু হতেই সেই সমীক্ষার ইঙ্গিত উঠে আসতে শুরু করল। গোটা দেশ কার্যত গোরুয়ার দখলে গেছে। “মহাগাঠবন্ধন”-এর অন্যতম শরিক অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু নিজের কেন্দ্রে ধরাশায়ী হলেন। নিজের রাজ্যে তেলেগু দেশম পার্টির অস্তিত্ব ধরে রাখতে পারলেন না তিনি।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন শেষ হতেই কালীঘাটে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করতে আসেন চন্দ্রবাবু। অন্ধ্রপ্রদেশের ট্রেন্ড বলছে এবার প্রথম থেকেই জগমোহন রেড্ডির ওয়াইএসআর কংগ্রেস আন্ধ্রে নেজেদের আধিপত্ত বিস্তার করতে শুরু করেই দিয়েছিল।এখনও পর্যন্ত ১৪৯টি আসনে এগিয়ে ওয়াইএসআর কংগ্রেস। আর চন্দ্রবাবু টিডিপি এগিয়ে ২৫টি আসনে।

অন্ধ্র প্রদেশে এবার লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনও হয়। দুই ক্ষেত্রেই ওয়াইএসআর কংগ্রেস এগিয়ে আছে বুঝে আগে ভাগেই ইস্তফা দিলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু। ভোটের ফলাফল অনুসারে আগামী ৩০ তারিখ অন্ধ্রপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে সপথ নিতে চলেছেন জগমোহন রেড্ডি।