Date : 2019-08-23

পঞ্চম দফায় অর্জুনের দাপট, অবাধ হুমকি লকেটের, এফআইআর করল কমিশন

ওয়েব ডেস্ক: রাজ্যে পঞ্চম দফা ভোটের অশান্তির সুর চড়েছিল পঞ্চম স্বরে। এদিন সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পর পর ৫টি এফআইআর দায়ের হয়। এর মধ্যে শীর্ষে নাম আছে ব্যরাকপুরের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং ও হুগলির বিজেপি প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের। শুধু এফআইআর নয়, দলীয় পতাকা আঁকা উত্তরীয় পরে ভোট দিতে যাওয়ায় শোকজ করা হয়েছে বনগাঁর বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুরকে।

পঞ্চম দফা ভোটে সকাল থেকেই উত্তপ্ত ছিল ব্যারাকপুর কেন্দ্র। ওই কেন্দ্রে একটি বুথে বিজেপি এজেন্ট বসতে না দেওয়াকে কেন্দ্র করে বচসা বাঁধে। বচসা ক্রমশ খন্ডযুদ্ধের আকার নেয়। তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে আহত হন অর্জুন সিং। তৃণমূলের তরফে অভিযোগ, দিনভর কার্যত গোটা এলাকায় ছুটে বেড়ান অর্জুন সিং। কাঁকিনাড়ায় তৃণমূল কর্মীদের তাড়া করেন আবার চক্ কাটালিয়ায় বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

গঙ্গার ওপারে তখন একই মেজাজে লকেট চট্টোপাধ্যায়কে রণংদেহী চেহারায় বুথে বুথে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। কোথাও তৃণমূল কর্মীকে জয় শ্রী রাম বলতে বাধ্য করান আবার কোথাও প্রিসাইডিং অফিসারকে হুমকি দেন প্রকাশ্যে। বুথের বাইরে ভুয়ো ভোটার আছে এই অভিযোগে ১৫৯ নং বুথে ইভিএম ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে।

দুই বিজেপি প্রার্থীর অভিযোগই প্রায় একই ছিল, এজেন্ট বসতে দেওয়া হচ্ছে না বুথে। তারকেশ্বরে প্রিসাইডিং অফিসারের সামনে ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ ওঠে অঞ্চলের ছাত্রনেতা মহাদেব নাগের বিরুদ্ধে। ঘটনায় ওই বুথের প্রিসাইডিং অফিসারকে শোকজ করা হয়েছে। পঞ্চম দফা ভোটের শেষে নির্বাচন কমিশন কার্যত ওয়ার্নিং বেল দিল বিজেপিকে।