Date : 2021-05-09

ভ্যাপসা গরম থেকে এখনই মুক্তি নেই শহরের…

ওয়েব ডেস্ক: ফণীর দুর্যোগ কাটতেই দক্ষিণবঙ্গ থেকে মুখ ফিরিয়েছে কালবৈশাখী। বৈশাখের দহন কাটিয়ে ভরা জৈষ্ঠের প্যাঁচ প্যাঁচে গরমে গলদঘর্ম অবস্থায় মানুষ। সুখের কথা শোনাতে ব্যার্থ আবহাওয়া দফতর।

রবিবার সন্ধ্যায় দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় ছিটে ফোঁটা বৃষ্টি হলেও, একখন্ড মেঘ ভেসেও বেড়াতে দেখা যায়নি শহরের আকাশে। দুপুর হতেই প্রবল গরমে শুনশান হয়ে যাচ্ছে রাস্তা। তীব্র দহনে ছাতুর সরবত, লেবুর জল কিংবা আঁখের রসে গলা ভিজিয়ে নিচ্ছেন পথ চলতি মানুষ।

সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পরিচ্ছন্ন আকাশের দিকে তাকিয়ে সবার একটাই প্রার্থনা, কবে এক বিন্দু বৃষ্টির দেখা মিলবে। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস সেই আশায় জল ঢেলে দিয়েছে। তাই শহরের ভ্যাপসা গরম থেকে এখনই মিলছে না রেহাই। দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি পশ্চিমের জেলাগুলিতেও ঝোড়ো বাতাসের সঙ্গে হতে পারে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত।

গত কয়েকদিন ধরে পাল্লা দিয়ে উর্ধ্বমুখী তাপমাত্রার পারদ, দোসর বাতাসে মাত্রাতিরিক্ত জলীয় বাষ্প। সোমবার শহরের তাপমাত্রা ছিল ৩৫ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত। যদিও দুপুরের শহরে তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রির মতো অনুভুতি হচ্ছিল। আগামী ২৪ তারিখ পর্যন্ত কলকাতায় বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়ে দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

পূর্বাভাস অনুযায়ী শহরে আগামী কয়েকদিন যে চরম অস্বস্তি জারি থাকবে তা জানিয়ে দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। ৮ জুন রাজ্যে বর্ষার অফিসিয়াল এরাইভেল ডেট। তীব্র গরমে বর্ষার আগমনের কথা বাতুলতা বললেই চলে। গরম কাটিয়ে শহর অন্তত দু- একটা কালবৈশাখী কবে পাবে সেই দিকে তাকিয়ে আছে শহরবাসী।