Date : 2021-04-15

গ্রামবাসীদের স্বার্থে চায়ের দোকানেই গ্রন্থাগার…

ওয়েব ডেস্ক:  বই পড়তে কে না ভালোবাসে। কিন্তু ভারতের যে দেশগুলি এখনও শিক্ষার আলো থেকে অনেকটা দূরে আছে, তাদের কাছে বইয়ের থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল খাবারের সংস্থান করা। তাই শিক্ষার দিকে নজর দেওয়ার সময় কোথায়। সেই কারণেই গ্রামবাসীদের শিক্ষিত করার এক অভিনব উদ্যোগ নিলেন কেরলের দুই বাসিন্দা।

একজন চায়ের দোকানের মালিক পি ভি চিন্নাথাম্বি এবং এক অধ্যাপক মুরলীধরনের তৎপরতায় কেরলের ইদুক্কি জেলার এদুমালাক্কাডি এলাকায় চায়ের দোকানেই খুলে ফেলা হল গ্রন্থাগার।২০১০ সালে সেখানে পঞ্চায়েত গঠিত হলে তখন থেকেই গ্রামবাসীদের মধ্যে শিক্ষাবিস্তারের উদ্দ্যেশ্যে এরকম কিছু করবে বলে মনস্থির করেন অধ্যাপক মুরলীধরন।

তার এই উদ্যোগ পছন্দ হওয়ায় পরবর্তীকাল তাকে সহযোগীতা করতে ইচ্ছুক হন চা বিক্রেতা চিন্নাথাম্বিও। দুজন মিলে ঠিক করেন গ্রন্থাগার প্রতিষ্ঠা করার কথা। কিন্তু জায়গায় অভাব দেখা যাওয়ায় চিন্নাথাম্বির চায়ের দোকানেই খুলে ফেলা হয় গ্রন্থাগার।

প্রথম দিকে গ্রামের আদিবাসী (মথুভান জনজাতি) বইয়ের প্রতি অনিহা দেখালেও বর্তমানে তাদের পড়ার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে বলেই দাবি অধ্যাপকের। এছাড়া অন্য গ্রামের বিশিষ্টজনেরাও এখন এই গ্রন্থাগারের ব্যাপারে সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছেন বলে জানান অধ্যাপক মহাশয়।