Date : 2022-06-27

ট্রেন লক্ষ্য করে বোমাবাজি কাঁকিনাড়ায়, আতঙ্কিত যাত্রীদের হুড়োহুড়ি স্টেশনে…

উত্তর ২৪ পরগণা: রবিবার ভাটপাড়া বিধানসভা উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। ভোট মিটলেও এখনও থামেনি সংঘর্ষ। সোমবারের পর, মঙ্গলবারেও অশান্তি বজায় থাকে ভাটপাড়ায়।

প্রসঙ্গত, মাধ্যমিকের ফলপ্রকাশের দিনেও কাঁকিনাড়া স্টেশনে শুরু হয় রেল অবরোধ। এর জেরে শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর শাখায় দীর্ঘক্ষণ রেল অবরোধ থাকে। অবরোধ করার পর দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনকে লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ার অভিযোগ ওঠে দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। আতঙ্কিত যাত্রীদের মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। কোন রকমে পিছনের রাস্তা দিয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান যাত্রীরা।

দুষ্কৃতী তাণ্ডব রুখতে কাঁকিনাড়া স্টেশনে পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। রবিবার বিধানসভা উপ-নির্বাচনের দিন কাঁকিনাড়ায় তৃণমূল-বিজেপির ব্যাপক সংঘর্ষ বাঁধে। উল্লেখ্য, তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র বুথ পরিদর্শনে আসলে শুরু হয় অশান্তি। কাঁকিনাড়ার একটি স্কুলে বুথে ঢুকতে গেলে মদন মিত্রকে বাধা দেয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। শুরু হয় বচসা। ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় মদন মিত্রকে। শুরু হয় তৃণমূল ও বিজেপির সংঘর্ষ।

ভোট চলাকালীন মুড়িমুড়কির মতো বোমা পড়তে থাকে এলাকায়। এমনকি দুষ্কৃতীরা কয়েক রাউন্ড গুলিও চালায় বলে স্থানীয় সূত্রের খবর। বিজেপি কর্মীদের তরফে অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এলাকায় তাণ্ডব চালায়। ভেঙে দেয় বিজেপি কর্মীদের ঘরবাড়ি। এমনকি কোন কোন জায়গায় বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। ঘটনার প্রতিবাদে পুলিশি নিষ্ক্রিতার অভিযোগে জগদ্দল থানা ঘেরাও করে বিজেপি কর্মীরা।

সোমবার পরিস্থিতি সামাল দিতে ভাটপাড়ায় জারি হয় ১৪৪ ধারা। সংঘর্ষে জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন। এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন গুরুতর জখম হয়েছে। এখনও এলাকায় প্রবল উত্তেজনা বজায় আছে। কাঁকিনাড়ার ঘটনার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন। ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।