Date : 2021-03-07

বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব গিরিশ করনাডের জীবনাবসান

ওয়েব ডেস্ক: বিশিষ্ট কন্নড় অভিনেতা তথা চিত্র পরিচালক গিরিশ করনাড-এর জীবনাবসান। সোমবার সকালে বেঙ্গালুরুর একটি নামী বেসরকারী হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বার্ধক্যজনিত অসুখের কারণে তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন। হাসপাতালের মেডিক্যাল টিমের রিপোর্টে বলা হয়েছে মাল্টি অরগান ফেলিওরের কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। ১৯৩৮ সালের ১৯ মে মুম্বইতে জন্ম হয় তাঁর। কর্ণাটকে অঙ্ক ও সংখ্যাতত্ত্বে স্নাতক হওয়ার পর রাজনীতি ও অর্থনীতি নিয়ে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি লাভ করেন।

লেখাপড়ার পাশাপাশি নাট্যজগৎ-এ অভিনয়ের জন্য তাঁর বিশেষ খ্যাতি ছিল। এমনকি কন্নড় ভাষায় বিশিষ্ট লেখক হিসাবে পরিচিতি ছিল তাঁর। এই বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্বের প্রয়াণে ট্যুইট করে শোকজ্ঞাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও সর্বভারতীয় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী সহ বিশিষ্টজনেরা।

সংস্কৃতির জগৎ-এর পাশাপাশি মুম্বই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে তাঁর গভীর সংযোগ তৈরি হয়। তাঁর ঝুলিতে রয়েছে চারটি ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড। ১৯৭০-এ মুক্তিপ্রাপ্ত ‘সংস্কার’ ছিল তাঁর ডেবিউ ছবি। একে একে ‘নিশান্ত’, ‘মন্থন’ , ‘স্বামী’, ‘পুকার’-এর মতো ছবিতে অভিনয় করেন। ২০০৫-এ মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ইকবাল’-এ তাঁর অভিনয় পছন্দ করেছিলেন দর্শক।

সলমন খানের সঙ্গে ২০১২-এ ‘এক থা টাইগার’ এবং ২০১৭-এ ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’তেও গিরিশের অভিনয় দেখেছেন দর্শক। অন্য দিকে টেলিভিশনেও গিরিশ সমান স্বচ্ছন্দ ছিলেন। ১৯৮৬-’৮৭তে জনপ্রিয় টিভি ধারাবাহিক ‘মালগুডি ডেজ’-এ অভিনয় করেছিলেন। ১৯৭৪ সালে পদ্মশ্রী এবং ১৯৯২ পদ্মভূষণ সম্মান দেওয়া হয় তাঁকে। জ্ঞানপীঠ পুরষ্কারেও ভূষিত হন তিনি। তাঁর প্রয়াণে শোকের ছায়া শিল্পী মহলে।