Date : 2019-06-27

মিমি-নুসরতের চেয়েও সুন্দরী, চেনেন নাকি এই সাংসদকে?

ওয়েব ডেস্ক: লোকসভা ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর শপথ নিয়েছেন ৫৪২ জন সাংসদ। নেত্রী থেকে অভিনেত্রী, সাংসদদের তালিকায় আছেন বিভিন্ন পেশার সঙ্গে জড়িত জনপ্রতিনিধিরা। বরাবরই প্রিয় অভিনেতা বা অভিনেত্রীকে জনপ্রতিনিধি হিসাবে দেখতে উৎসাহী হন সাধারণ মানুষ।

নেটিজেনদের দাবি মিমি নুসরতের থেকেও সুন্দরী তো বটেই, ভারতের সবচেয়ে সুন্দরী সাংসদ হলেন নবনীত রবি রানা। রাজনৈতিক ক্ষেত্রে চমক আনতে মঞ্চে প্রচার সভা অথবা ভোটার তালিকায় চমক দিতে কোনরকম কৌশলই বাকি রাখেন না রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃত্বরা। ভারতের সংসদীয় রাজনীতিতে তারকার সমাবেশ এযাবৎ কালে নতুন কিছু নয়।

প্রতিবারের মতো পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লোকসভার প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করার সময় টলিউডের একঝাঁক মুখ তুলে ধরেছেন এবারেও। দেবের পাশাপাশি এবার প্রার্থী তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন টলিউডের দুই সুন্দরী অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ও নুসরত জাহান।

এই খবর, সামনে আসতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রার্থীদের যোগ্যতা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়ে যায়, যা তাঁদের ব্যক্তিগত জীবন পর্যন্ত পৌঁছে যায়। অনেকেই মনে করেন যাদবপুর এবং বসিরহাটের প্রার্থী দুই টলি তারকা মিমি ও নুসরত জিতেছে নিজেদের রূপের যাদুতে। কিন্তু তাদের থেকেও সুন্দরী সাংসদ আছেন নবগঠিত লোকসভায়।

মহারাষ্ট্রের অমরাবতী কেন্দ্র থেকে জিতেছেন তারকা সাংসদ নবনীত। তবে তিনি কোন দলের সাংসদ  নন, নির্দল প্রার্থী হিসাবেই লড়াই করেছেন। হারিয়েছেন শিবসেনার প্রার্থীকে। তেলেগু, তামিল, পাঞ্জাবি ছবিতে তিনি খুবই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালেও নবনীত নির্বাচনে লড়াই করেছিলেন। কিন্তু তখন তিনি ভোটে জিততে পারেননি। দ্বিতীয় হয়েছিলেন তিনি।