Date : 2019-10-24

প্রথা ভেঙে লাল শালুতে মুড়ে “বই-খাতা”বাজেট আনলেন সীতারমণ

ওয়েব ডেস্ক: প্রথা ভাঙলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। ব্রিফকেসের বদলে শালুর কাপড়ে মুড়ে বাজেট নিয়ে সংসদে ঢুকলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। সকালেই সংসদে পৌঁছে ছিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। বাজেট পেশের আগে সকালেই রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।

অর্থমন্ত্রী যখন আজ নর্থ ব্লকের অফিস থেকে বের হন তখনই তাঁর হাতে ওই লাল শালুতে মোড়া বাজেট বক্তৃতার নথি দেখা যায়।

ভারতের প্রথম মহিলা অর্থমন্ত্রী হিসাবে এই বিষয়ে অবশ্যই অনন্য নজির রেখেছেন নির্মলা সীতারমণ। লাল শালুতে মোড়া বাজেট তথ্যের ব্যাগের উপর ছিল রাষ্ট্রীয় প্রতীক সোনালী রঙের অশোক চক্র।

কেন এই ভাবে বাজেট বক্তৃতার নথি সংসদে আনা হল সেই প্রসঙ্গে জানতে গেলে অর্থমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, এই লাল শালুতে মোড়া ব্যাগ ‘বই খাতা’ বার্তা দিচ্ছে। আর এর মাধ্যমে পশ্চিমি দাসত্বের অবসান ঘটিয়ে ভারতীয় সংস্কৃতির উপর জোর দেওয়ার বার্তা দেওয়া হচ্ছে। এদিন বাজেট বক্তৃতার শুরুতেই ‘মজবুত ভারত’-এর কথা বলেন সীতারামণ। তিনি বলেন, ‘এবার লোকসভা নির্বাচনে ভোটের সংখ্যা ছিল অনেক বেশি। প্রত্যেকেই সরকারের প্রতি আস্থা প্রদর্শন করেছেন। এই নির্বাচনে উজ্জ্বল ও স্থায়ী ভারতের বার্তা পাওয়া গিয়েছে।

এছাড়াও দেশের নারী শক্তিকে নারী থেকে নারায়ণীতে পরিবর্তিত করার লক্ষ্যের উপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। নারী স্বনির্ভরতার জন্য সেল্ফ হেল্প গ্রুপে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। গৃহঋণের ক্ষেত্রে ৪৫ টাকা পর্যন্ত বাড়তি দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণে ছাড় দেওয়া হবে। তবে বার্ষিক ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়করে ছাড় দেওয়া হয়েছে। এছাড়া দেশের রান্নাঘরে এলপিজি গ্যাস পৌঁছে দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয় বাজেটে।

বাজেট পেশের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এদিন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ এবং তাঁর সম্পূর্ণ টিমকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তবে এদিন কংগ্রেসের পক্ষ থেকেই এই বাজেটে কর্মসংস্থানের কোন দিশা নেই বলে জানানো হয়েছে। পেট্রোল ডিজেলের দাম বৃদ্ধি ও একাধিক সরকারি সংস্থার বেসরকারিকরণের বিরোধীতা করা হয়েছে। প্রত্যাশা অনুসারে বাজেট হয়নি বলেই মনে করছেন বিরোধীরা।