Date : 2019-08-18

অসহযোগীতার অভিযোগে মেয়রপদে ইস্তফা দিলেন সব্যসাচী দত্ত …..

কলকাতা: বিধাননগরের পৌরনিগমের মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দিলেন সব্যসাচী দত্ত। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪ টে নাগাদ সাংবাদিক সম্মেলন করে ইস্তফা পত্র পড়ে শোনালেন সব্যসাচী দত্ত। তবে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন মেয়র পদ থেকে সরে দাঁড়ালেও কাউন্সিলর পদ থেকে তিনি এখনই ইস্তফা দিচ্ছেন না। এমনকি মেয়র পদ ত্যাগ করার সঙ্গে সঙ্গে রাজনৈতিক মহলে তাঁর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা উঠলেও তিনি তা নস্যাৎ করে দেন।

এদিন তিনি সংবাদ মাধ্যমের সামনে জানান, জনাদেশের ভিত্তিতে তিনি ওই অঞ্চলের নির্বাচিত কাউন্সিলর হয়েছেন তাই এই মুহুর্তে তিনি সেই পদ থেকে ইস্তফা দেবেন না। এদিন বৈঠেক তিনি বলেন, “ সরকারি কর্মী ইউনিয়নের বিক্ষোভে যোগ দিয়েছিলাম। বিদ্যুৎভবনে বিক্ষোভের জেরে জটিলতা হয়। তারপরেই একটি চিঠি পাই। আমার মনে হয় চিঠি আইনসঙ্গত নয়, তাই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হই। হাইকোর্ট আমাদের আর্জিকে মান্যতা দেয়।

আদালতে আমার নৈতিক জয় হয়।” গতকাল হাইকোর্টের মামলার রায়ে সাময়িকভাবে স্বস্তি পেয়েছেন সব্যসাচী দত্ত। তাঁর বিরুদ্ধে কাউন্সিলরদের আনা অনাস্থা প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে বিধাননগরের পুর কমিশনার যে বৈঠক ডেকেছিলেন, সেই বৈঠকের নোটিসকে বুধবার খারিজ করে দেন বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়। নোটিসের বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে সব্যসাচী দত্তই কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন। হাইকোর্ট জানায় নোটিস অবৈধ। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে তিনি দাবি করেন বিধাননগর পুরসভায় কাজ করার সময় তিনি অসহযোগিতার সম্মুখীন হন।

শাসক দলের সঙ্গে সমন্নয়ের অভাবে তিনি কাজ করতে পারছেন না বলেও অভিযোগ করেন। এদিন সাংবাদিক বৈঠক করার আগেই তিনি বিধাননগর পুরসভার চেয়ারপার্সনকে পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন এমনটাই জানান। এমনকি পুরসভা থেকে দেওয়া মেয়রের গাড়িও এদিন ত্যাগ করেন সব্যসাচী দত্ত। অন্যায়ের সঙ্গে আপোস করতে না পেরে তিনি বিধাননগর পুরনিগমের মেয়র পদ ত্যাগ করলেন বলে এদিন জানিয়েছেন।