Date : 2021-03-06

দেশের সর্বোচ্চ “ভারতরত্ন” সম্মানে ভূষিত প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়….

ওয়েব ডেস্ক: রাষ্ট্রপতি ভবনে আয়োজন করা হয়েছিল বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের। সেখানেই প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়কে ভারতরত্ন সম্মানে ভূষিত করা হল। বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের হাত থেকে এই সম্মান গ্রহণ করলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু। ভারতরত্ন সম্মানে ভূষিত হয়ে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় বেশ উচ্ছসিত ছিলেন।

এই দিনেই মরণোত্তর ভারতরত্ন সম্মানে ভূষিত করা হয় গায়ক ভূপেন হাজারিককে। তাঁর অবর্তমানে সেই পূরস্কার গ্রহণ করেন তাঁর পুত্র তেজ হাজারিকা। মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়া হয় বিশিষ্ট সমাজসেবী নানাজি দেশমুখকে। প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় ভারতরত্ন সম্মানে ভূষিত হওয়ার পর তাঁকে টুইট করে জাতীয় কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানানো হয়। ইন্দিরা গান্ধীর সময় থেকেই কংগ্রেস আমলে মন্ত্রীসভায় বেশ কয়েকটি গুরুত্ব দায়িত্ব সামলেছেন প্রনব মুখোপাধ্যায়। এরপর রাষ্ট্রপতি হিসাবেও বিশেষ গুরুত্ব রেখে গেছেন।

এবছরের জানুয়ারি মাসেই প্রণববাবুকে ভারতরত্ন দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। এরপরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে রাহুল গান্ধী, শাসক-বিরোধী সবাই অভিনন্দন জানান প্রণব মুখোপাধ্যায়কে। প্রধানমন্ত্রী টুইট করেন, ‘প্রণবদা আমাদের সময়ের একজন অসাধারণ রাষ্ট্রনায়ক। কয়েক দশক ধরে নিঃস্বার্থভাবে উনি দেশের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। ভারতের উন্নতির পিছনেও তাঁর অনেক অবদান আছে।

তাঁর দূরদৃষ্টি ও মেধায় সমৃদ্ধ হয়েছে গোটা দেশ। তাঁর মতো মানুষ ভারতরত্ন পাচ্ছেন জেনে আন্তরিকভাবে আনন্দিত হয়েছি।’ জবাবে সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন প্রণববাবু। টুইট করেছিলেন, “মহান এই সম্মান পাওয়ার জন্য আমি দেশবাসীর কাছে কৃতজ্ঞ। সবসময় আমি বলি, যতটা না দিয়েছি, তার থেকে জনগণের থেকে অনেক পেয়েছি।”

ভারতের রাজনীতিতে চাণক্য হিসাবে পরিচিত প্রণব মুখোপাধ্যায় জন্ম গ্রহণ করেছিলেন ১৯৩৫ সালের ১১ ডিসেম্বর মুর্শিদাবাদ জেলার কীর্ণাহারের মিরাটি গ্রামে। ১৯৬৯ সালে কৎগ্রেসের সদস্য হিসাবে প্রবেশ করেছিলেন ভারতের সংসদীয় রাজনীতিতে। ২০১২সালে ভারতের ১৩ তম রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ গ্রহণ করেন তিনি।