Date : 2019-11-22

বামেদের নবান্ন অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র হাওড়া, লাঠিচার্জে, পাল্টা ইটবৃষ্টি, আহত অনেক….

কলকাতা: বামপন্থী ছাত্র ও যুব সংগঠনের ডাকে নবান্ন অভিযানকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হাওড়া। নবান্নমুখী মিছিলকে আটকাতে জলকামানের ব্যবহার করে পুলিশ। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ মিছিলের উপর বেপরোয়া লাঠিচার্জও করেছে পুলিশ। বিক্ষোভকারীদের তরফে ইট-বোতল বৃষ্টি করা হয়েছে পুলিশকে লক্ষ্য করে। দুপক্ষেরই বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। ঘটনার জেরে দুপক্ষেরই বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। ১২টি বাম সংগঠনের নবান্ন অভিযানকে কেন্দ্র করে বেনজির নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

এদিন হাওড়া স্টেশনে বামেদের জমায়েতের পর গোটা মিছিলের পথ ঘিরে রেখেছিল কম ব্যাট ফোর্স , রোব কপ। হাওড়ার রেল মিউজিয়াম থেকে বঙ্কিম সেতু পার করে মল্লিক ফটক পর্যন্ত মিছিল পৌঁছাতেই পুলিশের বিশাল ব্যারিকেটের সম্মুখীন হয়। এই বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু হওয়ার আগে থেকেই বাম-ছাত্ররা জানিয়েছিলেন তারা পুলিশি বাধা না মেনেই এগিয়ে যাবেন নবান্নের দিকে। এরপরেই দুপক্ষের মধ্যে শুরু হয় হাতাহাতি। মিছিল থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনীর দিকে ছোঁড়া হয় ইট, বোতল। পুলিশও এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ করতে শুরু করে।

প্রথম মহিলা পুলিশ বাহিনী তারপর একে একে রোব কপ, কোমব্যাট ফের্স পার করে মিছিল এসে পৌঁছায় লোহার ব্যারিকেটের সামনে। সেখানেই বিশাল পুলিশ বাহিনী মিছিলকে ছত্রভঙ্গ করে দিতে জলকামান চালায়। তাছাড়া মিছিলের উপর ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পুলিশ। মিছিলে লাঠিচার্জের জেরে আহত হয়েছেন বেস কয়েকজন বাম ছাত্র-যুব কর্মী।

পুলিশ সূত্রে খবর, নবান্নের নিরাপত্তা বেষ্টনীকে সুদৃঢ় করতে হাওড়া পুলিশ কমিশনারেটের কর্তারা ছাড়াও পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে প্রচুর পুলিশ বাহিনী আনা হয়েছিল। কম খরচে লেখাপড়া, বেকার ভাতা দেওয়া এবং নতুন শিল্পের দাবিতে এদিন বামেদের ১২টি ছাত্র যুব সংগঠন নবান্ন অভিযান করে। সিঙ্গুর থেকে এই মিছিল শুরু হয় বৃহস্পতিবার। আজ হাওড়া থেকে সেই মিছিল নবান্নের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। মিছিলের জেরে নবান্ন সংলগ্ন অঞ্চল, বঙ্গিম সেতু, মল্লিক ফটকে প্রবল যানজটের সৃষ্টি হয়।