Date : 2019-12-15

ফের ধোঁয়ায় মুখ ঢেকেছে আকাশ, চোখ খোলা যাচ্ছে না, তীব্র শ্বাসকষ্টে হাঁসফাঁস করছে দিল্লি….

ওয়েব ডেস্ক:- মাত্র কয়েকদিন কেটেছে। দূষণের ভার কমিয়ে আকাশের মুখ দেখেছিল রাজধানী। ফের গ্যাস চেম্বারে পরিনত হল দিল্লি। ১৪ নভেম্বর থেকে বাড়তে বাড়তে ফের ধুলো, ধোঁয়ায় মুখ ঢেকেছে রাজধানী। বুধবার বিকেলে দিল্লির দূষণের অবস্থা যে পর্যায় পৌঁছায় তাতে সরকারিভাবে জনস্বাস্থ্যের জরুরি অবস্থার সমতুল্য বলে মনে করছে প্রশাসন। এই অবস্থায় ফের রাজধানীর সমস্ত স্কুল কলেজ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেন্ট্রাল পলিউশন কন্ট্রোল ব্যুরোর মত, এদিন দিল্লির এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় পৌঁছেছে। সেন্ট্রাল পলিউশ কন্ট্রোল ব্যুরোর রিপোর্ট অনুসারে যেখানে বাতাসে প্রতিঘন মিটারে পি.এম অনুসারে বাতাসে ধূলিকণার পরিমান হওয়া উচিত ৩১.৯/পিএম। দিল্লির এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের রিপোর্ট নিম্নরূপ….

অশোক বিহার- ৭৫৭

নয়ডা-৬৬৫

দ্বারকা- ৯৩০

নারেলা- ৮১৮

পুষা- ৭৭৭

রোহিনী-৭৬৫

গুরুগ্রাম-৯৫৩

মঙ্গলবার রাত থেকে বাতাসে দূষণের মাত্র বাড়তে শুরু করে। ঘন ধোঁয়ার আস্তরণে ঢাকা পড়ে গেছে দিল্লি। বিশেষজ্ঞদের মত, বাতাসে যে পরিমান দূষণ বেড়েছে দিল্লিতে তাতে ফুসফুসের ব্যপক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স ২০১ থেকে ৩০০ হলে, তা খারাপ। ৩০১ থেকে ৪০০ হলে খুব খারাপ। ৪০১ থেকে ৫০০ হলে মারাত্মক। ৫০০-র বেশি হলে প্রাণনাশও হতে পারে। দিল্লিতে সেই ৫০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। রাজধানীতে দূষণ নিয়ে দিল্লি সরকারকে ভর্ত্‍‌সনাও করে সুপ্রিম কোর্ট৷ দিল্লির মুখ্য সচিবকে ধমক দিয়ে বিচারপতি বলেন, ‘আপনি রাস্তার ধুলে কমাতে পারছে না, নির্মাণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না, আবর্জনার স্তূপ কমাতে পারছেন না, কেন এই পদে রয়েছেন?’