Date : 2019-12-15

‘শ্যুটিং-এর ফাঁকে রোজ তেলেভাজা খেতাম’, কলকাতায় এসে অকপট রাখি…

ওয়েব ডেস্ক:- ছবির চিত্রনাট্য ও চরিত্র আর্কষণ করেছিল তাঁকে। পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের ছবি “শুভ মহরৎ”-এ অভিনয়ের জন্য একবারে রাজি হয়েছিলেন রাখি গুলজার। তারপর দীর্ঘ সময় রূপালি পর্দার অন্তরালে ছিলেন রাখী গুলজার। ৭২ বছর বয়সে এসে গাছপালা, পাখি-পশুদের সঙ্গে সময় কাটে তাঁর। পরিচালক গৌতম হালদারের ছবি “নির্বাণ”-এর চিত্রনাট্যে মুগ্ধ হন রাখি গুলজার। তাই আবারও বড় পর্দায় ফেরা হল তাঁর। ২৫ তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনে এসে নন্দনে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে নস্টালজিক হয়ে পড়লেন। “নির্বান” ছবির শ্যুটিং-এ এসে তাঁর স্মৃতিতে উঠে এলো বালিগঞ্জের মাছবাজার থেকে উত্তর কলকাতার তেলেভাজার গল্প। ছক ভাঙা আড্ডায় মেতে রইলেন, তার মধ্যেই উঠে এলো অযোধ্যা মামলার মতো ভারী বিষয়। কথপোকথনের কিছু অংশ…

প্রশ্ন:- “শুভ মহরৎ” ছবির পর দীর্ঘ বিরতি, ফের বড় পর্দায় ফেরা…..

রাখি গুলজার:- গৌতম হালদারের থেকে “নির্বাণ”ছবির প্রপোজাল যেদিন পাই সেদিন হাসপাতালে ছিলাম। আমার নাতি সেদিনই জন্ম নেয়। হাসপাতাল থেকে ফিরে গৌতম ডেকে নিলাম ফার্ম হাউসে। গরু-ছাগলের মাঝে বসেই অসাধারণ গল্প আর চিত্রনাট্য মুগ্ধ করেছিল আমায়। তারপর মনে হল এই ছবিটা তো করতে হবে। আর কী অদ্ভুত সময়ে রায়দান হল। আমাদের ছবিটা প্রাসঙ্গিক।ভারতের যেকোনও জায়গায় ছবিটা দেখানো উচিত”।

প্রশ্ন:- “অযোধ্যা মামলার সঙ্গে তাঁর ছবি প্রসঙ্গিক, তবে অযোধ্যা মামলা নিয়ে তাঁর মতামত জানতে চাইলে বলেন…. ”

রাখি গুলজার:- “মনে হল দের আয়ে দুরস্ত আয়ে, মনে হল এবার রাম-রহিম পাশাপাশি থাকবে এর থেকে ভাল আর কী হতে পারত।”

প্রশ্ন:- “কলকাতায় কখন আসেন….”

রাখি গুলজার:- কলকাতায় প্রায়ই আসি।তবে কখন আসি, কখন যাই, কোথায় বেড়াই কেউ জানতে পারেনা। সবটাই নিঃশব্দে।(হাসি) প্রত্যেকটা রাস্তা আমার চেনা। রাধুবাবুর দোকান, টালিগঞ্জের একটা বাজারে বড় বড় কই মাছ পাওয়া যায়, চপের দোকান, সব জানি।চাইনিজ খেতে হলে তো ট্যাংরা। আগে কলকাতায় ন্যাম কিং -নামে একটা জনপ্রিয় চাইনিজ দোকান ছিল।”

প্রশ্ন:- রান্না করতে ভালোবাসেন…

রাখি গুলজার:- “রান্ন করতে এখনও ভালোবাসি। বেশিরভাগ বাঙালি রান্নাই করি। তবে মাঝে মাঝে পরীক্ষা নিরীক্ষা করি। রান্নাও একটা সায়েন্স। ”

প্রশ্ন:- কখনও কি পরিচালনার কাজে আসতে চান…

রাখি গুলজার:- “ না ওটা মেয়ের ডিপার্টমেন্ট। নিজে অভিনেত্রী ছিলাম বলে কখনও ভাবিনি যে মেয়েও অভিনেত্রী হবে এমনটা ভাবিনি। ও যা হতে চেয়েছিল তাই হয়েছে। ”

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রসঙ্গে বলেন,

রাখি গুলজার:- “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ, খুব যত্ন করে ডেকেছিলেন। খুব আন্তরিক, সবাইকে সহজে নিজের করে নেয়। ওঁর মনে পড়ল আমি কলকাতার মেয়ে। তবে আমি কিন্তু কলকাতায় প্রায়ই আসি।”