Date : 2019-11-18

১৫ দিনের মধ্যে টালাব্রিজ ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেবে নবান্ন ….

ওয়েব ডেস্ক: টালা ব্রিজ নিয়ে দীর্ঘ টালবাহানা শেষ। শুক্রবার বৈঠকের পর টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নিল সরকার। এদিন বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পুলিশ প্রশাসন ও রেলের কর্তারা। বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, শনিবার টালা ব্রিজ পরিদর্শনে যাবেন পুলিশ প্রশাসন ও বিশেষজ্ঞ দল। ব্রিজ পরিদর্শন করে ১৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দেওয়ার কথা বিশেষজ্ঞ দলের। রেলের তরফ থেকে জানানো হয়, ব্রিজের যে অংশ রেলের আওতার মধ্যে পড়ে সেই অংশ রেল কর্তৃপক্ষ নিজের তত্ত্বাবধানে ভাঙবে। বাকি অংশ ভাঙবে রাজ্য প্রশাসন। জানা গিয়েছে জানুয়ারি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই ভাঙা হতে পারে টালা ব্রিজ। টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার ১ বছরের মধ্যে ব্রিজ তৈরি করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

সম্পূর্ণ ভাবে টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলা হলে দুর্ভোগে পড়বেন নিত্যযাত্রীরা। সেজন্য বিকল্প রুট বের করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পরিবহণ দফতরকে। বদল করা হবে বেশ কিছু সরকারি বাসের রুটও। এদিনের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সরকারি বাসের রুট পরিবর্তন হলেও বদল হবে না বাস ভাড়ায়। ঘুরপথে গন্তব্যে পৌঁছলেও যাত্রীদের অতিরিক্ত ভাড়া গুনতে হবে না। প্রসঙ্গত, মাঝেরহাট ব্রিজ থেকে শিক্ষা নিয়ে শহরের বিভিন্ন ব্রিজ পরীক্ষা করছে রাজ্য সরকার। আর তাতেই টালা ব্রিজের বেহাল দশা নজরে এসেছে। তবে টালাব্রিজ ভেঙে দিলে ওই অঞ্চলে যাতায়াতের সমস্যা আরও তীব্র হবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে বিকল্প ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

যাত্রীর চাপ কমাতে বাড়তি মেট্রো চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই টালা ব্রিজে বিভ্রাটের জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গিয়েছে ২৩০ রুটের বাস। বন্ধ হয়েছে প্রায় ৯টি রুটের অন্তত সাড়ে তিনশ বাস। সমস্যা কমাতে বিকল্প ব্যবস্থাও নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।