Date : 2020-09-25

২৪ ঘণ্টার মধ্যেই নাটকীয় মোড়, রাজনীতি ছাড়ার কথা ঘোষণা মেহতাব হোসেনের

তৃণমূলের শহিদ দিবসের দিনেই বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন প্রাক্তন ফুটবলার মেহতাব হোসেন। মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলে খেলা তথা প্রাক্তন জাতীয় ফুটবলার মেহতাব হোসেনের হাতে গেরুয়া পতাকা তুলে দিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মেহতাবের বিজেপিতে যোগদান যতটা চমকপ্রদ ছিল, তার থেকেও চমক মেহতাবের পরবর্তী ঘোষণায়। বুধবার মেহতাব জানালেন, রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন তিনি। কিছুটা ভুল করেই রাজনীতির ময়দানে পা রেখেছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর আসল ময়দান যে অন্য সেটা তিনি বুঝতে পেরেছেন। তাই আর নয়। নিজের ইচ্ছাতেই রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন তিনি।

মেহতাব হোসেন তাঁর ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, যে মানুষগুলো আমাকে মেহতাব করে তুলেছিল সেই মানুষগুলোর পাশে থাকার জন্যই আমার রাজনীতিতে প্রবেশ করার ইচ্ছা। মনে হয়েছিল, রাজনীতিতে এলে হয়তো আরও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছতে পারব। সারা পৃথিবীর এই খারাপ সময়ে সামর্থ্য অনুযায়ী বহু মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি, তবুও যেন একা পেরে উঠছিলাম না। চারিদিকে ওই অসহায় মুখগুলো আমার রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছিল। চারপাশের সংখ্যাটা রোজ বাড়ছে। তাই হঠাৎ করেই রাজনীতিতে যোগ দিই। তবে তারপর অদ্ভুত একটা উপলব্ধি হয়। যাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমার রাজনীতিতে আসা, তারাই আমাকে অনুরোধ করে, আমি যেন রাজনীতিতে সরাসরি না যাই। মানে, কোথাও গিয়ে তাদের ভাবাবেগ যেন আমাকে রাজনীতিবিদ হিসাবে দেখতে চাইছে না। তাদের কাছে আমি এখনও ফুটবলার, মিডফিল্ড জেনারেল। তাই অনেক ভেবে সিদ্ধান্ত নিলাম, রাজনীতি থেকে নিজেকে সরিয়ে নেব। আমি চাই না আমার জীবনটা বদলে যাক। আমার পরিবার মৌমিতা, জিদান, জাভি কেউই সমর্থন করেনি আমার আকস্মিকতা। ঠিক যেভাবে সাধারণ মানুষ কষ্ট পেয়েছে, সেভাবে ওরাও পেয়েছে। কারোর প্রতি কোনও ঘৃণা নেই, রাগ নেই। বাইরের কেউ এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্যও করছে না। সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছাতেই ফিরে যাচ্ছি রাজনীতির এই ময়দান থেকে। যেভাবে সাধারণ মানুষের পাশে থেকেছি, সেভাবে ভবিষ্যতেও থাকব। আজ থেকে কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আমি যুক্ত নই। আমার এই সিদ্ধান্তের জন্য আমার সকল শুভানুধ্যায়ীদের কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থনা করছি।