Date : 2020-09-30

সংবাদপত্রে সিইএসসির ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট নন বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, নতুন করে বিল পাঠানোর ইঙ্গিত

কেউ বলছেন অস্বাভাবিক বিল, কেউ বলছেন ভুতুড়ে বিল। কেউ আরও একধাপ এগিয়ে বলছেন, করোনা আবহে ইলেকট্রিক শক। বিদ্যুতের বেশি বিল নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে যে সব প্রশ্ন রয়েছে শনিবার বিভিন্ন সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে তার একটা ব্যাখ্যা দিয়েছে সিইএসসি কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সেই ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হতে পারেননি খোদ রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ই।

শনিবার সন্ধেয় আর প্লাস নিউজকে দেওয়া ফোন ইন সাক্ষাৎকারে শোভনদেববাবু বলেছেন, আজ (শনিবার) সকালেই ওদেরকে ফোন করে জানাই, যে ডিসিশন আপনারা নিলেন আমি তো ওইরকমভাবে আপনাদের বলিনি। আমি বলেছিলাম, এমনভাবে ব্যাখ্যা করুন যাতে করে যারা নাগরিক, যারা গ্রাহক তাঁরা বুঝতে পারে তাঁর বেশি বা কম বিল হওয়ার কারণটা কী এবং তখনই তাঁরা দেবে। তা না হলে এই বিক্ষোভটা চলতেই থাকবে। ওরা আজকে যেটা বের করেছে দ্যাট ইজ নট এনাফ।

তার থেকে কিছু বোঝা যাচ্ছে না। তার থেকে বোঝা যাচ্ছে না মানুষের বেশি বিল আসার কারণটা কী। আমি তাদের বলি, বিজ্ঞাপনে আপনারা যা বলেছেন তাতে আমি সন্তুষ্ট নই। আপনারা কীভাবে বিল কাউন্ট করছেন তা উদাহরণ দিয়ে বোঝান। ওরা আমার কাছে একদিন সময় চেয়েছেন। ওরা একটি ওয়ার্ক আউট করছেন। আপাতত যারা বিল পেয়েছেন তাঁদের বিল না দিলেও চলবে। যদিও এই কথাটা ওরা আমাকেই বলেছেন। তবুও আমি বলছি, ওরা একটা পথ বের করার চেষ্টা করছেন। যাতে প্রত্যেক গ্রাহকের কাছে ওরা পৌঁছতে পারে। এই ওয়ার্ক আউটের পরে ওরা হয়তো মানুষের কাছে নতুন করে বিলও পাঠাতে পারে। তখনই হয়তো পুরো বিষয়টা ক্লিয়ার হবে।