Date : 2020-10-27

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর ডাকে বৈঠক, করোনায় আক্রান্ত মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী

দেশের সার্বিক করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সোমবার সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে ফের বৈঠক করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। লকডাউন ও আনলক পর্বে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। শুনেছিলেন মুখ্যমন্ত্রীদের মতামত। পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যা, লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি, স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা-সহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়েছিল সেইসব বৈঠকে। বর্তমানে দেশে আনলক ২ চলছে। ৩১ জুলাই শেষ হওয়ার কথা এই পর্বের। কিন্তু দেশের সাম্প্রতিক যা করোনা পরিস্থিতি তাতে অনেকেই সন্দিহান আনলক ৩ নিয়ে। বরং বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করছেন, ফের হয়তো সার্বিক লকডাউনের পথেই হাঁটতে চলেছে দেশ। এর সঙ্গত কারণও রয়েছে। শনিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক প্রকাশিত মেডিক্যাল বুলেটিন অনুয়ায়ী ভারতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ৮৬১। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৮ হাজার ৯১৬। কোনও একদিনের আক্রান্তের হিসাবে যা সর্বোচ্চ। দেশে মৃত্যুর সংখ্যাও ক্রমবর্ধমান। আরও ৭৫৭ জনের মৃত্যুতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ হাজার ৩৫৮। সাম্প্রতিক সময়গুলিতে দেখা গিয়েছে ৬ দিন, ৫ দিন, ৪ দিনের মধ্যেও দেশে লক্ষাধিক মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণ যে হারে ছড়িয়েছে তাতে এখন ২ দিনেই এক লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হতে বসেছেন। করোনাকে সর্বশক্তি দিয়ে রুখতে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের অনেকেই তাই মনে করেছেন, ব্রেক দ্য চেইন করতে গেলে টানা ১৪ দিনের লকডাউন প্রয়োজন অধিক সংক্রমিত জেলা বা এলাকাগুলিতে। এই যেখানে পরিস্থিতি সেখানে সোমবার প্রধানমন্ত্রী কী বার্তা দেন সেদিকে নজর গোটা দেশবাসীরই। বৈঠকে যোগদানের কথা ছিল মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহানের। কিন্তু শনিবার সামাজিক মাধ্যমে তাঁর করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি। গত কয়েকদিন ধরে অল্পস্বল্প উপসর্গ ছিল তাঁর। এরপর পরীক্ষা করান। সেখানেই রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে মুখ্যমন্ত্রীর। সম্প্রতি যাঁরা তাঁর সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদের সকলের কাছেই দুঃখপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে তাঁর অনুরোধ ও পরামর্শ সকলেই যেন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকেন। না হলে সংক্রমণ আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে।