Date : 2021-09-26

হনুমা-অশ্বিনের পার্টনারশিপ, সিডনিতে অস্ট্রেলিয়ার মুখের গ্রাস কাড়ল ভারত

ভারত জিতবে এমন বিশ্বাস অতি বড় ভক্তেরও ছিল না। বরং অস্ট্রেলিয়া জিততে পারে এমন সম্ভাবনাই ছিল ষোলো আনা। সিডনি টেস্টের পঞ্চম দিনে তাই ছিল টানটান উত্তেজনা। দিনের শেষে কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার মুখের গ্রাস কেড়ে নিয়ে ভারতেরই জিত হল। হ্যাঁ, এই ড্র ভারতের কাছে জয়ের চেয়ে কিছু কম নয়। নিশ্চিত হারা ম্যাচ ধৈর্য্য ও একাগ্রতার সঙ্গে ভারত যেভাবে ড্র করেছে তাতে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কার্যত জয়ই পেল ভারত।

চতুর্থ দিনের শেষবেলায় রোহিত শর্মা ও শুভমান গিল আউট হয়ে যাওয়ায় পাল্লা ভারি ছিল অস্ট্রেলিয়ার। পঞ্চম দিনে ম্যাচ জিততে ভারতের প্রয়োজন ছিল আরও ৩০৯ রান। হাতে ছিল ৮ উইকেট। পঞ্চম দিনের শুরুতেই অজিঙ্কা রাহানেকে তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ১০২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ম্যাচে প্রায় তলিয়ে যেতে বসে ভারত।এরপরের ঘণ্টা দেড়েক ভারতের রাজকীয় প্রত্যাবর্তন। সৌজন্যে চেতেশ্বর পুজারা ও ঋষভ পন্থ। চতুর্থ উইকেটে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের পাল্টা মার দিতে থাকেন দুজনে।বিশেষ করে ঋষভ পন্থ। মারমুখী মেজাতে কামিন্স, স্টার্কদের শাসন করতে থাকেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। পন্থের ১২টি চার ও ৩টি ছক্কার দাপটে অশনি সঙ্কেত দেখছিলেন অস্ট্রেলিয় বোলাররা। একসময় দুজনে মিলে ভারতের স্কোর পৌঁছে দেন আড়াইশো রানে। পরিস্থিতি এমন দাঁড়ায় যে ভারত এই টেস্ট জিততে পারে এমন একটা দুরূহ সম্ভাবনাও উঁকি মারতে শুরু করে। কিন্তু মুহূর্তের ভুলে ছন্দপতন। নাথান লিঁয়র বলে প্যাট কামিন্সের হাতে ধরা পড়ে যান পন্থ। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৩ রান দূরে ৯৭ রানেই থেমে যায় পন্থের ইনিংস। মাটি কামড়ে পড়ে ছিলেন পুজারা। প্রথম ইনিংসে তাঁর মন্থর ইনিংস সমালোচিত হয়েছিল। দ্বিতীয় ইনিংসেও একইরকম ইনিংসে খেলতে দেখা যায় তাঁকে। ম্যাচ বাঁচানো সেই ইনিংসকে কোনও ক্রিকেট বোদ্ধা এরপর মন্থরতার দায়ে অভিযুক্ত করেন কিনা সেটাই দেখার। হ্যাজলউডের বলে বোল্ড হয়ে যান পুজারা। ততক্ষণে তাঁর নামের পাশে ২০৫ বলে ৭৭ রান। যার মধ্যে ১২টি চার। সংযমী ইনিংস। ধৈর্যের ইনিংস।২৭২ রানে ভারতের পঞ্চম উইকেট পতনের পরে ফের ম্যাচে ফেরে অস্ট্রেলিয়া। জয়ের গন্ধে মশগুল হয়ে উঠেন কামিন্সরা। পুজারা-পন্থ যে পার্টনারশিপ গড়েছিলেন এই পর্বে তারই যেন রিপ্লে। না, পুরো রিপ্লে নয়। প্রায় ৩০ ওভার তখনও বাকি। কিন্তু হনুমা বিহারী ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন যেন পণ করেছিলেন কিছুতেই উইকেট দেবেন না।শত চেষ্টা করেও এই জুটি ভাঙতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। শেষপর্যন্ত ম্যাচ ড্র। খেলা যখন ভাঙে ভারত তখন ৫ উইকেটে ৩৩৪। অসমাপ্ত পঞ্চম উইকেটে ৬২ রান যোগ করেন দুজনে। এই ৬২ রান যে অমূল্য তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ১৬১ বলে ২৩রানে অপরাজিত থাকেন হনুমা বিহারী। ১২৮ বলে ৩৯ রানে অপরাজিত থাকেন অশ্বিন।