Date : 2021-10-22

অনএয়ারে বেতনে সরব সঞ্চালক

ওয়েব ডেস্ক : সংবাদের সাথে যুক্ত মানুষদের সত্যি বলাই কাজ। যদিও অনেক সময় তার অন্যথা হয়ে যায়। কিন্তু কথায় বলে “পাপী পেট কা সাওয়াল”। তাই স্টুডিওতে খবর পরার সময় আচমকাই খবর থামিয়ে দেন সঞ্চালক। অনুষ্ঠানের মাঝে সরাসরি চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে দায়ি করে তিনি বলে ওঠেন দীর্ঘদিন ওই সংস্থার কর্মীরা কোনো বেতন পাননি। তাদের সংসার চালাতে অসুবিধা হচ্ছে। সূদুর অতীতেও সঞ্চালকদের বেশ কিছু কাণ্ড ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।এবার এই ধরণের কাণ্ডে হতবাক সকলেই। মূহুর্তে ভাইরাল ভিডিও।যানা যায় জাম্বিয়ার সংবাদ চ্যানেলে কাবিন্দা কালিমিনার কেবিএন টিভি তে সঞ্চালকে র কাজ করেন।একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী আর ৫দিনের মতোই খবর পড়তে শুরু করেন কাবিন্দা।

খবর পড়ার সময় আচমকাই তা থামিয়ে দিয়ে তিনি বলেন দর্শকদের সামনে বাইরের একটি খবর তুলে ধরার চেষ্টা করছি।মালিকপক্ষ দীর্ঘদিন তাদের পারিশ্রমিক দিচ্ছেন না। তাদের সংসার চালাতে অসুবিধা হচ্ছে। আমার এক সহকর্মী স্যারন এবং বাকি কেউই বেতন পাননি। এমনকী আমিও মাইনে পাইনি। অথচ আমাদের কিন্তু বেতনের প্রয়োজন।” এছাড়াও তিনি বলেন তাদের এই সমসঅযার কথা তিনি তুলে ধরার চেষ্টা করছেন। কারন তারাও মানুষ। তাদেরও প্রতিমাসে বেতনের প্রয়োজন পরে। এমনকি খবরের ক্লিপটি নিজের ফেসবুক প্রোফাইলেও শেয়ার করেন তিনি।

কারণ বেশিরভাগ সাংবাদিক মুখ খুলতে ভয় পান। তার মানে এই নয় যে, সাংবাদিকরা মুখ খুলবেন না।” ইতিমধ্যে ভিডিওটি রীতিমতো ভাইরালও হয়েছে। বিভিন্ন কমেন্টস উঠে এসেছে এই ভিডিওর প্রেক্ষিতে। অনেকেই মাইনে মিটিয়ে দেওয়ার কথা বলেছেন।যদিও চ্যানেল কর্তৃপক্ষ কাবিন্দার তোলা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। পাশাপাশি বলা হয়েছে, কাবিন্দা অনুষ্ঠান চলাকালীন মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। তিনি সংস্থার পার্ট টাইম কর্মী। তবে তাঁর এই আচরণ কখনওই মেনে নেওয়া যায় না।তবে এর পর কাবিন্দার চাকরি আদৌ আছে না কি নেই তা জানা যায়নি।