Date : 2021-07-24

শ্রীলঙ্কায় চিনা প্রভাব, আশঙ্কায় ভারতীয় নৌসেনা

ওয়েব ডেস্ক : শ্রীলঙ্কার বন্দর প্রোজেক্টেও ধীরে ধীরে প্রভাব বিস্তার করা শুরু করেছে চিন। তার জেরে ভারতের স্বার্থে কোপ পড়তে পারে বলে মনে করছেন নৌসেনার আধিকারিকদের একাংশ। এমনিতেই ভারত- চিনের সীমান্ত সমস্যায় এখনও অব্যাহত রয়েছে। তার উপর শ্রীলঙ্কায় চিনের প্রভাব বিস্তারে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন বিশেষজ্ঞরা।

শ্রীলঙ্কার  হাম্বানটোটা বন্দর ৯৯ বছরের জন্য লিজ নিয়েছে চিন। আর এবার আরও একটি বন্দর তাদের হাতে আসতে পারে বলে খবর। তাতেই প্রবল আশঙ্কায় ভারতীয় নৌসেনা।  তাতেই উদ্বেগে নয়াদিল্লি। এই ইস্যুতে মুখ খুলেছেন নৌসেনার ভাইস চিফ ভাইস অ্যাডমিরাল জি অশোক কুমার। তিনি জানিয়েছেন,  ভারত মহাসাগরের পরিস্থিতির উপর সর্বদা তাঁদের নজর রয়েছে। শ্রীলঙ্কায় বর্তমানে ক্ষমতায় রয়েছে গোতাবায়া রাজাপক্ষ সরকার। বেজিংয়ের সঙ্গে শ্রীলঙ্কার শাসকদলের সম্পর্ক অনেকটাই মজবুত। এই পরিস্থিতিতে চিনা আগ্রাসনের আশঙ্কায় আগে থেকেই প্রস্তুত রয়েছে নৌসেনা।ভারতের প্রতিবেশী নেপাল, পাকিস্তানের সঙ্গে সখ্যতা বজায় রেখেছে বেজিং। এবার শ্রীলঙ্কা সেই তালিকায় যুক্ত হওয়ায় আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

এই ইস্যুটি চূড়ান্ত গুরুতর কিনা তা এখনই বলা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন নৌসেনার ভাইস চিফ ভাইস অ্যাডমিরাল জি অশোক কুমার। তিনি জানান, ওই অঞ্চলের ব্যাপারে বহিরাগতরা অতিরিক্ত উৎসাহ দেখালে উদ্বেগ বাড়ে। অন্যদিকে ওই এলাকায় যেহেতু অধিকাংশ বাণিজ্য করে চিন। সেক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কার উৎসাহটাও অস্বাভাবিক নয়। তিনি জানান, নিজেদের নিরাপত্তার পাশাপাশি পুরো পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে ভারত। ভারতীয় নৌবাহিনী সর্বদা সজাগ রয়েছে বলেও জানিয়েছেন নৌসেনা আধিকারিক।