Date : 2021-06-21

‘অভিষিক্ত’ অভিষেক

বিশ্বজিত ভট্টাচার্য, ইনপুট এডিটর : শুরু হল বঙ্গ রাজনীতিতে অভিষেক যুগ। অনেকদিন ধরেই পরিবারতন্ত্রে কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হচ্ছিল অভিষেককে। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে সেই অভিযোগের যোগ্য জবাব দিয়ে নেতৃত্বে উঠে এলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ছোটো-বড়-মাঝারি নেতারাতো বটেই, নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহদেরও নিশানায় ছিলেন অভিষেক। গোটা দেশের চোখে থাকা বঙ্গভোটে সেই আক্রমণ ভোঁতা করেই দলের সর্বভারতীয় নেতৃত্বে পা রাখলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিধানসভা নির্বাচন পর্বে তাঁকে ক্রমাগত ব্যক্তিগত আক্রমণ করে জাতীয় স্তরে চর্চায় নিয়ে গিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ। শনিবার ভোটের পর প্রথম সাংগঠনিক বৈঠকে তাঁকে জাতীয় স্তরের নেতৃত্বে নিয়ে গেল তৃণমূল কংগ্রেস। গোটা নির্বাচন পর্বে বিজেপি, বাম ও কংগ্রেসের মূল নিশানায় তৃণমূল সুপ্রিমোর সঙ্গে ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তুমুল ব্যক্তিগত আক্রমণ, নিন্দা ও কুৎসার মুখে দাড়িয়ে অত্যন্ত পরিনত রাজনৈতিক আচরণে তার মোকাবিলা করেন এই তরুণ নেতা। ভোট বৈতরনি পেরোনোর পর দলে তার এই উত্তরণ ছিল সময়ের অপেক্ষা।

ভোটপর্বে অভিষেককে কুৎসা এবং নিন্দাভরা আক্রমণে সবাইকে ছাপিয়ে গিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। ভোটশেষে দাঁড়িপাল্লায় তাঁকে অনেক নীচে ফেলেছেন অভিষেক। অভিষেকের উত্তরণে বঙ্গ রাজনীতিতে এক নতুন মাত্রা যোগ হল। কংগ্রেস, বিজেপি বা বামেরা যখন তরুণ মুখ খুঁজতে হয়রান, তখন অত্যন্ত মসৃণ গতিতে সেই কাজ সেরে ফেলল তৃণমূল কংগ্রেস।