Date : 2021-06-21

প্রকৃতির রোষানলে অসহায়

ওয়েব ডেস্ক : মাথার ছাদ নেই। এমনকি পানীয় জলের জন্যও হাহাকার। সুন্দরবনে বন্যা দুর্গতদের অসহায় অবস্থা দেখে এগিয়ে এসেছে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের বনকর্মীরা। সকাল হলেই নৌকায় জল নিয়ে গোসাবা ব্লকে চলে আসছেন বনকর্মীরা। কিন্তু এভাবে কী পানীয় জলের সমস্যা দূর হয়। অনেকে চড়া দামেও জল কিনে প্রানে বাঁচছেন।

প্রকৃতির রোষানলে অসহায় সুন্দরবনের প্রত্যন্ত এলাকার মানুষ। ইয়াস দুর্যোগের জেরে ভরা কটালে গ্রামের পর গ্রাম জলমগ্ন। মাথার উপর ছাদ নেই, নেই অন্ন, বস্ত্র এমনকি টিউবওয়েল, ট্যাপকল সবই জলের তলায়। তাই পানীয় জলের হাহাকার দেখা দিয়েছে গোসাবা ব্লকের পাখিরালা, রাঙাবেলিয়া, লাহিড়িপুর, কুমিরমারি মত একাধিক এলাকায়। এইসব বন্যা দুর্গত অসহায় মানুষদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের বনকর্মীরা। সকাল হলেই নৌকা করে পানীয় জল এনে বিলি করা হচ্ছে গোসাবা ব্লকের এই সমস্ত গ্রামের মানুষদের। কোমর জল পেরিয়ে পানীয় জল নেওয়ার দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে মিলছে জল। অনেকেই আবার জল কিনছেন চড়া দামে।

প্রতিবছর বাঁধ তৈরি হয়। আর প্রাকৃতিক দুর্যোগ এলেই সেই বাঁধ ভেঙে নোনা জল ঢুকে ভাঁসিয়ে নিয়ে যায় গ্রামের পর গ্রাম। এভাবে জল আর ডাঙায় বসবাস করতে করতে শক্ত হয়ে গেছে মন। প্রতিশ্রুতি মেলে হাজার তার পরেও বানভাসি মানুষগুলোর কষ্ট দূর হয়না।