Date : 2021-07-24

মাটি খুঁড়ে গুপ্তধন পাওয়ার গল্প – প্রতারিত প্রাক্তন কাউন্সিলর

মাটির খুঁড়ে গুপ্তধন পাওয়ার গল্প ফেঁদেছিলেন যুবক। সেই ফাঁদে পা দিয়ে 12 লক্ষ টাকা দিয়ে স্বর্ণমুদ্রা কেনেন রানাঘাটের প্রাক্তন কাউন্সিলর শঙ্কর অধিকারী। সেগুলি আসল কিনা যাচাই করতে গিয়েই ধরা পড়ে নকল। রানাঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের প্রাক্তন কাউন্সিলরের।

স্বর্ণমুদ্রা কিনতে গিয়ে প্রতারণার শিকার রানাঘাটের প্রাক্তন কাউন্সিলর শঙ্কর অধিকারী। নকল স্বর্ণমুদ্রা বিক্রি করে বেশ কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। রানাঘাট পুরসভার 1নং ওয়ার্ডে বাড়ি প্রাক্তন কাউন্সিলর শঙ্কর অধিকারীর। অভিযোগ, ফোনে আলাপ হয়েছিল দুই যুবকের সঙ্গে। এরপর দু একবার দেখা করেছিলেন। সেই সূত্র ধরেই শঙ্করবাবুর বাড়িতে এসে নকল স্বর্ণমুদ্রা বিক্রি করে 12 লক্ষ টাকা হাতানোর অভিযোগ উঠেছে।

মাস কয়েক আগে বীরভূমের এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় হয় শঙ্কর অধিকারীর।ওই যুবক একটি স্বর্ণমুদ্রা বিক্রির জন্য শঙ্করবাবুর কাছে আনেন।সোনার দোকানে পরীক্ষা করিয়ে সেই মুদ্রা কিনে নেন শঙ্করবাবু।এরপর গোপাল অধিকারী নামে ওই যুবক শঙ্করবাবুর সঙ্গে আবার যোগাযোগ করেন।আরও মুদ্রা বিক্রি করবেন বলে জানান।ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলে সেই মুদ্রা কিনে নেন শঙ্করবাবু।এরপর ওই যুবককে ফোন করলে ফোন সুইচড অফ পাওয়া যায়। সন্দেহ হওয়ায় সোনার দোকানে পরীক্ষা করাতে নিয়ে যান শঙ্করবাবু।দেখা যায় সবকটি স্বর্ণমুদ্রাই নকল।

এই স্বর্ণমুদ্রার জন্য ওই দুই যুবক 12 লক্ষ টাকা নিয়েছে বলে অভিযোগ। রানাঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন শঙ্করবাবু। টাকা ফেরতের পাশাপাশি, অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছেন শঙ্করবাবুর স্ত্রী। এই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে রানাঘাট থানার পুলিশ।