Date : 2021-10-22

Sourav Ganguly : সৌরভ গাঙ্গুলীর জমি সংক্রান্ত মামলায় রাজ্য সরকার ও হিডকো কর্তৃপক্ষকে আর্থিক জরিমানা।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী জমি সংক্রান্ত মামলায় রাজ্য সরকার এবং হিডকো কর্তৃপক্ষকে পৃথকভাবে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ ।জরিমানার ১০হাজার টাকা জমা দিতে হবে রাজ্যের লিগ্যাল সেলকে।

গত ৯ জুলাই ২০১২ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজ্য সরকারের কাছে লিখিত আবেদন জানান ।তিনি তাতে লিখেছিলেন একটি স্কুল এবং ক্রিকেট কোচিং সেন্টার করতে চান।পরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লেখেন। সেই চিঠির ভিত্তিতে ৯৯ বছরের জন্য লিজ দেওয়াহবে কিনা রাজ্যের মন্ত্রীগোষ্ঠীর বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নিউ টাউনে ২ একর জমি প্রদান করা হবে।

২০১৩ সালের ৫ই ফেব্রুয়ারি রাজ্যের মন্ত্রী গোষ্ঠীর বৈঠকে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জমি ১০,৯৮ কোটি টাকায়। সেখানে আর হয়েছিল ওই জমিতে ১০+২ একটি বিদ্যালয় করতে হবে।হিডকো কে জানিয়ে দেওয়া মন্ত্রিগোষ্ঠীর এই সিদ্ধান্তের কথা।

হিডকো তাঁদের ৭১তম মিটিংয়ে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কে ওই জমি দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেন।এবং ২৮ই ফেব্রুয়ারি ২০১৩ সালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জমির রাজ্য সরকারের কাছে ওই জমির দাম ৪৫% কম করার আর্জি জানান।

২৭ই মে ২০১৩ সালে রাজ্য সরকারের মন্ত্রীগোষ্টির বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় আগে দাম দেওয়া হয়েছিল তা কমিয়ে ৫.২৭ কোটি টাকায় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এরপর ৯৯ বছরের জন্য হিডকো ইলেকট্রিক, জল, পুরো পরিষেবা বাবদ ৫ কোটি ৯০ লক্ষ ৩০ হাজার ৭২০ টাকা ধার্য করেন। ১৩ই মার্চ ২০১৪ সালে

গঙ্গোপাধ্যায় এডুকেশন ওয়েল ফেয়ার সোসাইটির এবং মধ্যে হিডকোর মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ২০১৬ সালে হিউম্যানিটি ফর সল্টলেকের তরফ থেকে মামলা দায়ের করেন।মামলাকারীদের পক্ষের আইনজীবী অনিন্দ্য লাহিড়ী আদালতে বলেন বিনা টেন্ডারে স্বল্প দামে কেনওই জমি দেওয়া হলো? অন্যান্য খেলোওয়ার দের নিয়েও একটি টেন্ডার করে জমি বিলি করা যেত যা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ক্ষেত্রে করা হয় নি বলেও অভিযোগ মামলাকারীরা আইনজীবীর।

২০২০সালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ওই জমি রাজ্য সরকার কে ফেরত দিয়ে দেন।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিরাজেশ বিন্দল ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চের পর্যবেক্ষণ যে উদ্দেশ্যে জমিনেওয়া হয়েছিল কেন তা ফেরত দেওয়া হলো।রাজ্য সরকার ও হিডকো কেনই বা জমি দিলো কেনই বা ফেরত নিল।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী বাণিজ্যিক বা সামাজিক প্রেক্ষাপটে কোন জমি হস্তান্তরের পর কেন ফেরত দেওয়া হলো তাঁর উপযুক্ত কারণ দর্শাতে হয়।এক্ষেতে তা মানা হয়নি।তাই রাজ্য সরকার ও হিডকো কতৃপক্ষ কে আলাদা আলাদা ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা ধার্য করলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি র ডিভিশন বেঞ্চ।