Date : 2021-10-19

4 New Helipad : বিপর্যয়ের শিক্ষা। দক্ষিণে চার হেলিপ্যাড। পাইপলাইনে পূঃ মেদিনীপুর, উঃ ২৪ পরগনা।

সঞ্জু সুর, রিপোর্টার : বিপর্যয় মোকাবিলায় দ্রুত যোগাযোগ ও উদ্ধারকাজে সহায়তার জন্য রাজ্যে আরো চারটি নতুন হেলিপ্যাড তৈরি করা হবে। ইতিমধ্যেই নবান্নের সবুজ সংকেত পাওয়া গিয়েছে। প্রথম পর্যায়ে এই চারটি হেলিপ্যাড তৈরি হবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায়। জেলার গোসাবা, পাথরপ্রতিমা, কাকদ্বীপ ও ডায়মন্ড হারবার ২ ব্লকে এই চারটি হেলিপ্যাড তৈরি করা হবে। নবান্ন সূত্রে খবর, পরবর্তী কালে পূর্ব মেদিনীপুর ও উত্তর ২৪ পরগনা জেলাতেও এই ধরনের হেলিপ্যাড তৈরি করা হতে পারে।

সবে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় এসেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শপথ নেওয়ার কয়েকদিনের মধ্যে রাজ্যে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলোতে একেবারে লন্ডভন্ড অবস্থা। বিশেষ করে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকা একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। সেই সময় নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করার সময় মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন ঘূর্ণিঝড় নিত্ত নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিপর্যস্ত মানুষ কে উদ্ধারের জন্য আরো বেশি হেলিপ্যাড তৈরি করা হবে এইসব জেলাগুলোতে।


মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মতো গত জুলাই মাসে ডিপিআর (ডিটেইলস প্রজেক্ট রিপোর্ট) তৈরি করে নবান্নে পাঠায় দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন। ডিপিআর অনুযায়ী এই জেলার যে অঞ্চলগুলিতে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বেশি পড়ে সেই রকম চারটে জায়গাতে হেলিপ্যাড তৈরির প্রস্তাবে সবুজ সংকেত দিয়েছে নবান্ন। দূর্গত মানুষদের উদ্ধারের পাশাপাশি প্রয়োজনে মুখ্যমন্ত্রী, মুখ্যসচিব বা অন্যান্য সরকারি আধিকারিকরা যাতে সরাসরি এইসব এলাকায় পৌঁছাতে পারে, সেই জন্যেই নবান্নের এমন সিদ্ধান্ত। ইতিমধ্যেই মুখ্যসচিবের অনুমতিক্রমে পরিবহন দফতরের চিঠি পৌঁছেছে পূর্ত দফতরে। পূর্ত দফতর ই হেলিপ্যাড তৈরির কাজ করবে। দফতর সূত্রে খবর, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার এই হেলিপ্যাড তৈরি হয়ে গেলে পূর্ব মেদিনীপুর বা উত্তর ২৪ পরগনা জেলাতেও এমন কয়েকটি হেলিপ্যাড তৈরি করা হবে।