Date : 2021-10-16

একই পরিবারের ৫জনের পচাগলা দেহ সহ এক অচৈতন্য শিশু উদ্ধার

মাম্পি রায়, নিউজ ডেস্ক : একই পরিবারের ৫ জনের পচাগলা দেহ উদ্ধার হল কর্ণাটকের বাইয়াদারাহাল্লি এলাকায়। মৃতদের মধ্যে এক ন’মাসের শিশুও রয়েছে ওই ঘরের মধ্যেই অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে আড়াই বছরের এক শিশুকে।শুক্রবার রাতের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায় বাড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় ছিল ৪জনের দেহ।মৃতরা হলেন ভারতীদেবী (৫১), তাঁর দুই মেয়ে সিঞ্চনা (৩৪), সিন্দুরানি (২৫) (৩১) ও ছেলে মধুসাগর। ন’মাসের শিশুটির দেহ বিছানায় পড়ে ছিল বলে পুলিশ সূত্রে খবর। মধুসাগরের ঘরেই অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে ছিল আড়াই মাসের শিশুটি । তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। শিশুটির শারীরিক অবস্থা উদ্বেগজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর।

গত কয়েকদিন ধরে বাড়িতে ছিলেন না বাড়ির মালিক শঙ্কর। শুক্রবার রাতে ঘরে ফেরেন তিনি।  অনেক ডাকাডাকির পর সাড়া না মেলায়, প্রতিবেশীদের সাহায্য নিয়ে দরজা ভেঙে বাড়িতে ঢোকেন। তারপরই স্ত্রী, ছেলে ও মেয়েদের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান শঙ্কর। খবর পেয়ে দেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায় পুলিশ।

শঙ্কর জানিয়েছেন, সংসারে কোনও আর্থিক অনটন ছিল না। তাঁর দুই মেয়েই বিবাহিত। তাঁদের মধ্যে সিঞ্চনা আড়াই বছরের শিশুটির মা। স্বামীর সঙ্গে অশান্তির কারণে বাড়িতে এসেছিলেন তাঁরা। যদিও তাতে রাজি ছিলেন না শঙ্করের স্ত্রী ভারতী। ৩দিন আগে বাড়িতে ফোনও করেছিলেন, কিন্তু কেউ ফোন তোলেননি বলে জানান শঙ্কর। অন্যদিকে  প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, ছেলে মধুসাগরের সঙ্গে শঙ্করের বচসার জেরে বাড়ি ছেড়ে চলে যান তিনি।

শঙ্করকে ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। অন্তত ৫দিন আগে ওই ৫জন সদস্যের মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশের অনুমান। ২০১৮ সালে একই পরিবারের ১১ জন সদস্যের দেহ উদ্ধার হয়েছিল দিল্লির বুরারিতে। ঘটনাকে গণআত্মহত্যা বলে জানিয়েছিল দিল্লি পুলিশ।