Date : 2021-09-20

শ্যামল আদকের বিরুদ্ধে কোনো কড়া আইনি পদক্ষেপ নিতে পারবে না পুলিশ: হাইকোর্ট

স্নেহাশিস চট্টোপাধ্যায়, রিপোর্টার : রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত আদালতে সময় চাওয়ায় আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত রক্ষাকবচ শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ শ্যামল আদক। মঙ্গলবার পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না জানিয়ে দিলেন বিচারপতি রাজ শেখর মান্থা।
শ্যামল আদকের আইনজীবী পারমজিত সিং পাটুয়ালিয়া দাবি ২০১৭সালের সেপ্টম্বর মাসে হলদিয়া পুরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন শ্যামল আদক। তিনি হলদিয়া পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের পৌর পিতাও ছিলেন।১৫ই জানুয়ারি ২০২১চেয়াম্যান পদ থেকে শ্যামল আদক ইস্তফা দেন। কারণ তিনি শুভেন্দু অধিকারী সাথেই বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন।

২রা মে ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর শ্যামল আদকের বাড়ি ,সম্পত্তি ভাঙচুর করা হয়।হলদিয়া থানায় অভিযোগ জানিয়ে কোন কাজ হয়নি। চলতি বছরের জুলাই মাসে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে অভিযোগ করেন তিনি। “তারা মা রোড লাইন” নামে শ্যামল আদকের যৌথ ব্যবসা আছে।আমার বিরুদ্ধে হলদিয়া থানায় অভিযোগ করা হয় আমি হলদিয়া ডকে একটি সিন্ডিকেট চালাই এবং প্রতি লরি থেকে ১০০ টাকা করে তোলা আদায় করি।শুভেন্দু অধিকারীর মতোই আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ গুলি আনা হয়েছে তা চলতি বছরের জুলাই মাসে।

অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ রাজনৈতিক এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত। চলতি বছরের ৪ঠা মে আজাদ হিন্দ বাড়িতে হামলা চালানো হয়।এবং আমার বেশ কিছু সম্পতি নষ্ট করা হয়েছে।যার ক্ষতির পরিমাণ ৩কোটি ৪৩ লক্ষ টাকা।

৩১শে অগাস্ট আমার বিরুদ্ধে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন নিম্ব আদালত। আমার স্ত্রী দুরারোগ্য ক্যানসারের আক্রান্ত।পুলিস জুলাই মাস থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়াই আমার পরিবার কে হয়রানি করছে।

আমি এবং আমার পরিবার বহু অভিযোগ করেছি হলদিয়া থানায় কিন্তু পুলিশ কোন পদক্ষেপই নেয়নি। অথচ আমার বিরুদ্ধে একটি এফ আই আর করা হয়েছে লরি থেকে টাকা তোলার অভিযোগে।

বিচারপতি জানতে চেয়েছিলেন আদালতের কাছে কি চাইছেন? উত্তরে আইনজীবী জানান শুভেন্দু অধিকারীর মতোই শ্যামল আদকের অভিযোগের তদন্তের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করুক আদালত।বিচারপতি বলেন, শুভেন্দু অধিকারীর মামলার সাথে ২২৬এ এই মামলার কোন সম্পর্ক নেই। এই যুক্তিতে এই মামলার কোন গ্রহণ যোগ্যতা নেই। মঙ্গলবার শুনানিতে সাময়িক স্বস্তি মিলেছে শ্যামলের।